তথ্যপ্রযুক্তি উদ্যোক্তাদের জন্য আর্থিক সহায়তা সেবা চালু

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠানের মূলধন/বিনিয়োগ সমস্যার সমাধান দিতে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) ও আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেড যৌথভাবে ‘আইডিএলসি উদ্ভাবন’ নামক পরিপূর্ণ আর্থিক সহায়তা সেবা চালু করেছে। এর মাধ্যমে বিশেষ স্টার্টআপ লোন, শর্ট টার্ম লোনসহ সকল ধরণের লোন/ঋণ সুবিধা এমনকি দেশিয় সফটওয়্যার বা তথ্যপ্রযুক্তি সেবার কেনার জন্যও ঋণ পাওয়া যাবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর লেকশোর হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘আইডিএলসি উদ্ভাবন’ সেবার উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্ণর নাজনিন সুলতানা। বক্তব্য রাখেন বেসিস সভাপতি শামীম আহসান, আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সেলিম আর. এফ হোসেন ও বেসিসের যুগ্ম-মহাসচিব মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল। এছাড়া বেসিসের বর্তমান ও সাবেক কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ ও আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেডের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 প্রধান অতিথি জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমাদের দেশে নতুন উদ্যোক্তা তৈরি না হওয়ার অন্যতম কারণ কিংবা তরুণ উদ্যোক্তারা ব্যবসা শুরুর প্রথম দিকেই যে সমস্যাটিতে পড়েন সেটি হলো মূলধন বা বিনিয়োগ। আর এই সমস্যা থেকে রেহাই দিতে আইডিএলসি বেসিসের সদস্য কোম্পানিগুলোকে বিশেষ সুদে স্টার্টআপ লোন, শর্ট টার্ম লোনসহ সকল ধরণের লোন/ঋণ সুবিধা দিবে। ফলে তরুণ উদ্যোক্তারা নতুন ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে মূলধন/বিনিয়োগ ভোগান্তি থেকে রেহাই পাবে।

 বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্ণর নাজনিন সুলতানা বলেন, দেশের সফটওয়্যার ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ সংগঠন এবং আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে চালু হওয়া নতুন এই সেবা একদিকে যেমন আইসিটি ব্যবসাকে সম্প্রসারিত করবে, অন্যদিকে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

 বেসিস সভাপতি শামীম আহসান বলেন, এই সেবার মাধ্যমে আইডিএলসির কোনো এসএমই/কর্পোরেট গ্রাহক যদি সফটওয়্যার কিনতে চান তাহলে আইডিএলসি তাকে বেসিসের কাছে রেফার করবে। এক্ষেত্রে ঐ গ্রাহককে বিশেষ ছাড় দেওয়া হবে।

 আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সেলিম আর. এফ হোসেন বলেন, ‘আইডিএলসি উদ্ভাবন’ শুধুমাত্র আইসিটি উদ্যোক্তাদের প্রচলিত ধারার আর্থিক সেবাই প্রদান করবেনা, সেইসাথে নন-ফিন্যান্সিয়াল সেবাও প্রদান করবে। যা তাদের ব্যবসাকে বড় পরিসরে নিয়ে যেতে সহায়তা করবে। আমরা বিশ্বাস করি নতুন এই সেবা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

Please Share This Post.