তথ্যপ্রযুক্তির বড় প্রদর্শনী সফটএক্সপোর সফল সমাপ্তি!

টেকনোলজি ফর প্রসপারিটি স্লোগান নিয়ে আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (আইসিসিবি)-তে ১৯ মার্চ শুরু হওয়া ১৫তম বেসিস সফটএক্সপোর পর্দা নেমেছে জমকালো আয়োজন আর পুরষ্কার বিতরণীর মধ্য দিয়ে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে শ্যাডো ড্যান্সিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনাকে তুলে ধরা হয়। নজরকাড়া লেজার শো ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা, তথ্যপ্রযুক্তির পালাবদলে স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানসমূহের অবদান এবং স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সক্ষমতা তুলে ধরার ক্ষেত্রে বেসিস আয়োজিত বেসিস সফটএক্সপো’র সাফল্য তুলে ধরে। স্থানীয় লোকসংগীতের পাশাপাশি ছিল সেক্সোফোনে সংগীত পরিবেশনাও।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, দেশের সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানগুলোর সম্প্রসারণে এই এক্সপোর আয়োজন করা হয়। এতে প্রায় আড়াইশো প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। তিনদিনে আমরা নানা আয়োজনে দেশে এবং বিদেশে স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা তুলে ধরতে সফল হয়েছি।

এরপর, ১৫তম বেসিস সফটএক্সপোর পার্টনার হিসেবে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী এবং অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মোস্তাফা জব্বার এর কাছ থেকে ক্রেস্ট গ্রহণ করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল, এলআইসিটি, আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিল (আইবিপিসি), ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড।

পাশাপাশি, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কাছ থেকে এবারের বেসিস সফটএক্সপোর সেরা স্টলের পুরস্কার গ্রহণ করে ‘এনভিজিও’। সেরা মিনি প্যাভিলিয়ন নির্বাচিত হয় ‘ইরা ইনফোটেক’। আর সেরা প্যাভিলিয়নের পুরস্কার জিতে নেয় ‘টাইগার আইটি’।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কম্পিউটার সোসাইটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ মূসাকে আজীবন সম্মাননা (মরণোত্তর) প্রদান করা হয়। মুহাম্মদ মূসার দুই কন্যা এবং পরিবারবর্গ প্রধান অতিথি কাছ থেকে আজীবন সম্মাননা (মরণোত্তর) গ্রহণ করেন। এসময় সম্মাননা প্রদানের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান মুহাম্মদ মূসার পরিবারবর্গ।

পাশাপাশি, বেসিস সফটএক্সপো’র আয়োজন সফল করতে অনুষ্ঠান সহযোগীদের সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, দেশিয় সফটওয়্যার নির্মাতাদের জন্য বেসিস সফটএক্সপো এ অঞ্চলের সর্ববৃহৎ একটি প্ল্যাটফর্ম। স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি ডিজিটাল বাংলাদেশের মূল ভিত্তি। ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হচ্ছে স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নিরলস অবদানের কারণেই। বেসিস সফটএক্সপো স্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা তুলে ধরেছে। সরকারি-বেসরকারি খাতে দেশি সফটওয়্যারের গুণগত আর কৌশলগত মান তুলে ধরতে বেসিস কাজ করে যাবে বলেও দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন প্রধান অতিথি।

বেসিস সফটএক্সপোর আহ্বায়ক এবং বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান বলেন, এবারের আসরে আমরা সারাদেশ থেকেই প্রচুর সাড়া পেয়েছি। দেশ-বিদেশ থেকে বক্তারা এসেছেন। নারী উদ্যেক্তাদের জন্য ছিল উইমেন জোন। শিক্ষার্থীরা প্রতিটি স্টলেই সিভি জমা দিয়েছে। ছিল বি-টু-বি ম্যাচমেকিং, জাপান ডে, কর্পোরেট আওয়ার। বিজনেস লিডারশীপ মিটে অংশ নেন পাঁচ শতাধিক কর্পোরেট হাই অফিশিয়াল। আমরা সবাইকে নিয়ে বড় পরিসরে সমগ্র আয়োজনটি করেছি।

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/২৩এম/১৯

 

Please Share This Post.