তথ্যপ্রযুক্তিতে এক হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ

 

২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এবারের বাজেটে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দিয়ে এ খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য এ খাতে এক হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল বৃহস্পতিবার ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে এ প্রস্তাব পেশ করেন তিনি।

যা গত অর্থবছর থেকে ৬২২ কোটি টাকা বেশি।

বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী বলেন, সাইবার নিরাপত্তায় গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। সাইবার অপরাধ দমন ও তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ইন্টারনেট সেফটি সলিউশন ব্যবস্থা চালুসহ বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। যশোর সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক চলতি বছরের মধ্যে সম্পন্ন হবে। এছাড়া দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল স্থাপনের কাজও এ সময়ে শেষ হবে। দেশের প্রথম স্যাটেলাইট উেক্ষপণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের জন্য আইসিটি খাতের এ বরাদ্দ রাখা হয়েছে। আসন্ন অর্থবছরের বাজেটে আইসিটির উন্নয়ন প্রকল্পে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৬ হাজার ২৪২ কোটি টাকা। এছাড়া আইসিটি-সংশ্লিষ্ট প্রাতিষ্ঠানিক আবর্তক বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১ হাজার ১৬০ কোটি টাকা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের বিষয়কে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে সরকার। এক্ষেত্রে এরই মধ্যে উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন হয়েছে। এ অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে। চলতি অর্থবছর তথ্যপ্রযুক্তি অবকাঠামো উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ এবং ইন্টারনেট সেবার গুণগত মান বাড়ানোয় আমরা অনেকটাই অগ্রসর হয়েছি। সারা দেশে এ পর্যন্ত ৫ হাজার ২৭৫টি ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। জাতীয় তথ্য বাতায়নে সন্নিবেশ হয়েছে ২৫ হাজারের বেশি ওয়েবসাইট।
প্রস্তাবিত বাজেটে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উন্নয়ন ও অনুন্নয়ন ব্যয় মিলিয়ে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১ হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে উন্নয়ন ব্যয় ১ হাজার ৬০৫ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর এ বিভাগের উন্নয়ন ব্যয় বরাদ্দ ছিল ৯৫৪ কোটি টাকা। আর ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের জন্য আসছে অর্থবছরে মোট ২ হাজার ৫১৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.