ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রবি’র সহায়তায় দেশের প্রথম ই-লাইব্রেরী

ঢাকা: বইয়ের বৈশ্বিক ভান্ডার উন্মুক্ত করে দক্ষ মানব সম্পদ গড়ে তোলাকে আরো সহজ করতে দেশে প্রথমবারের মত যাত্রা করলো একটি ই-লাইব্রেরি। শীর্ষ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে আজ, গত ১০ অগাস্ট, ২০১৫ (সোমবার) মোবাইলফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় প্রতিষ্ঠিত এ লাইব্রেরির উদ্বোধন করা হয়। এতে বিশ্বের ৩৫টি বিশ্ববিদ্যালয় ও আন্তর্জাতিক প্রকাশনার বই পড়ার সুবিধা উন্মুক্ত হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক ই-লাইব্রেরির উদ্বোধন করেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. শহীদ আখতার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম ও রবি’র চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) মাহতাবউদ্দিন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।
ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ৬ হাজার ৯২ জন শিক্ষার্থী ও ২০৮ জন শিক্ষক সরাসরি এই লাইব্রেরির সুবিধা গ্রহণ করার সুযোগ পাবেন বলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়।
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও রবি আজিয়াটা লিমিটেডের ত্রি-পক্ষীয় চুক্তির ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত এ নান্দনিক আধুনিক শিক্ষা সহায়ক ব্যবস্থাটির সুবিধা দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও গ্রহণ করতে পারবেন।
ই-লাইব্রেরির মাধ্যমে ই-বুক, বিজ্ঞান সাময়িকী ও গবেষণাপত্র সহজলভ্য হওয়ায় দেশের এই মর্যাদাসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার মান আরো বৃদ্ধিতে সহায়তায় লাইব্রেরিটি স্থাপনের পাশাপাশি আগামী ১৫ বছর এর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বেও থাকবে রবি।
ই-লাইব্রেরি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আগামীর ব্যবসায়িক নেতৃত্ব তৈরিতে সহায়ক হবে। এর সুবিধাবলী ব্যবহারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা আধুনিক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য দক্ষ হয়ে গড়ে উঠতে সহায়তা করবে বলে উদ্যোক্তারা আশা করছেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, দেশে প্রথমবারের মত নেয়া এমন একটি উদ্যোগের ফলে শিক্ষার জগতে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ তথা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এক নতুন উচ্চতায় উন্নীত হলো।
বৃহৎ এ উদ্যোগে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর জন্য রবিকে এবং সফলভাবে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করার জন্য ব্যবসায় প্রশাসনের ডিন ও শিক্ষকদের ধন্যবাদ জানান উপাচার্য।
তিনি বলেন, এ সুবিধা গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় এমন মানবসম্পদ তৈরি করতে পারবে, যারা বিশ্বের সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিজেদের যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে পারবেন।
এ রকম একটি মহতি উদ্যোগের সাথে যুক্ত হওয়ার সুযোগ দেয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে রবি’র সিওও মাহতাবউদ্দিন আহমেদ বলেন, তরুণদের আপন শক্তিতে জ্বলে উঠার জন্য সহায়ক এমন কার্যক্রমে যুক্ত হওয়ার জন্য রবি সবসময়ই আগহ্রী। এভাবে ভবিষ্যত নেতৃত্ব বিনির্মাণে যুক্ত হতে পেরে আমরা গর্বিত।
ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে আন্তর্জাতিক মানের একটি শিক্ষা অনুষঙ্গ প্রতিষ্ঠার জন্য অনুষদের ডিন শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম তার বক্তেব্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, রবি আজিয়াটা লিমিটেড, সহকর্মী ও শিক্ষার্থীদের ধন্যবাদ জানান।
তিনি বলেন, ই-লাইব্রেরির মাধ্যমে অনুষদ এমন দক্ষ ব্যবসায়িক নেতৃত্ব গড়ে তুলতে সক্ষম হবে, যারা এই ডিজিটাল যুগের নেতৃত্ব দেয়ার জন্য যোগ্য হবেন।

সিনিউজভয়েস/ডেস্ক