ডিজিটাল লেনদেনের স্বাধীনতা প্রদানের লক্ষে নগদ

অধিকতর নিয়ন্ত্রণ এবং শৃঙ্খলা বজায় রেখে মানুষকে আরো বেশি লেনদেনের স্বাধীনতা প্রদানের লক্ষ্য নিয়ে শুরু হতে যাওয়া “নগদ”-এর কার্যক্রম শুরু করেছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ। মূলত ব্যাংকিং সেবার বাইরে থাকা দেশের প্রায় ৫০% জনগনের দোরগোড়ায় আর্থিক সেবা পৌঁছে দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ।

নতুন দিনের ডাকে সাড়া দিয়ে তাৎক্ষনিক এবং দ্রুততার সাথে আর্থিক লেনদেনের সুবিধা প্রদানের অপর নাম ‘নগদ’। গ্রাহক সেবাকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিয়ে ‘নগদ’-এর সামনে এগিয়ে যাওয়ার অঙ্গিকারে বদলে গিয়েছে ডাক বিভাগের দৃশ্যপট।  এছাড়াও আর্থিক সেবা নিরাপদে জনগনকে প্রদানের লক্ষ্যে বিপিও-এর প্রায় শতাধিক কর্মীকে অ্যান্টি মানি লন্ডারিং বা এএমএল-সিএফটি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।

এই প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ডাক বিভাগের মহা পরিচালক সুশান্ত কুমার মন্ডল বলেন “প্রাথমিকভাবে ঢাকা ও চট্টগ্রাম জিপিও-তে নগদ-এর ব্র্যান্ডিংসহ সেবা প্রদান করা শুরু হয়েছে। এছাড়া আগামি প্রান্তিকের মধ্যে দেশব্যাপি বিপিও-এর ১০০টি শাখা অফিস ‘নগদ’ সেবাপ্রদানের লক্ষ্যে ঢেলে সাজানো হবে।”

বাংলাদেশ ডাক অফিসের ৪০,০০০ কর্মচারী এবং তাদের ১০০ বছরের অধিক সময় ধরে নাগরিকদের দোরগোড়ায় নথিপত্র, নগদ টাকা এবং পার্সেল সরবরাহের অভিজ্ঞতা রয়েছে যা কিনা বাংলাদেশের মানুষদের কাছে যথেষ্ট নির্ভরযোগ্য এবং বিশ্বাসযোগ্য। ‘নগদ’ সেবার মাধ্যমে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ ডাক বিভাগের গুনগত মানের ধারাবাহিকতা আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ।

-সিনিউজভয়েস/

 

Please Share This Post.