ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করলেন তারানা হালিম

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী বেগম তারানা হালিম, সম্প্রতি মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে অ্যাসোসিও চেয়ারম্যান ডেভিড ওং ন্যান-এর কাছ থেকে ‘অ্যাসোসিও ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ করেছেন।

দেশব্যাপী ‘পোস্টাল ক্যাশ কার্ড’ প্রচলনের জন্য বাংলাদেশ পোস্ট অফিস এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে তথ্যপ্রযুক্তির শীর্ষ সংগঠন এশিয়ান-ওসেনিয়ান কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি অরগানাইজেশন (অ্যাসোসিও) কর্তৃক প্রবর্তিত মর্যাদাবান এই পুরস্কারে ভূষিত হয়। পুরস্কার গ্রহণ অনুষ্ঠানে তাকে অভ্যর্থনা জানান অ্যাসোসিও চেয়ারম্যান ডেভিড ওং ন্যান ফে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে মালয়েশিয়ার জাতীয় সংগঠন পিকম-এর চেয়ারম্যান চিন চি সিওং। এ সময় প্রতিমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিও ভাইস-চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি আলী আশফাক, সহ-সভাপতি ইউসুফ আলী শামীম, মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার, পরিচালক ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী সমন্বয়ক শাহিদ-উল-মুনীর এবং প্রাক্তন সভাপতি এস এম ইকবাল।

পুরস্কার গ্রহণের আগে প্রতিমন্ত্রী বেগম তারানা হালিম অ্যাসোসিও কার্যালয়ে সংগঠনের চেয়ারম্যান ডেভিড ওং ন্যান ফে এবং পিকম চেয়ারম্যান চিন চি সিওং-এর সঙ্গে এক আলোচনা সভায় মিলিত হন। এ সময় তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশের ওপর একটি বিস্তারিত প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন। অপর দিকে অ্যাসোসিও চেয়ারম্যান এই ভূ-অঞ্চলে ডিজিটাল কার্যক্রম বিস্তারে অ্যাসোসিও’র বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের ওপর একটি প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন। উপস্থাপনা দুটির ওপর ভিত্তি করে আলোচনায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়াবলী স্থান পায়। এসবের মধ্যে রয়েছে- ক্রস-বর্ডার পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে বৈধ পথে আর্থিক লেনদেনসহ ই-কমার্স এবং স্মার্ট সিটি স্থাপন। আলোচনাকালে প্রতিমন্ত্রীর নিকট থেকে অ্যাসোসিও এবং পিকম নেতৃদ্বয় বাংলাদেশ পোস্ট অফিস কর্তৃক প্রবর্তিত ‘পোস্টাল ক্যাশ কার্ড’ সম্পর্কে বিস্তারিত অবহিত হয়ে এই পদ্ধতি মালয়েশিয়া এবং এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশে প্রবর্তনের আগ্রহ প্রকাশ করেন।

অ্যাসোসিও কার্যালয় পরিদর্শন শেষে সফরসঙ্গীদেরকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিমন্ত্রী বেগম তারানা হালিম পুত্রজায়ায় অবস্থিত মালয়েশিয়া ডিজিটাল ইকোনমি কাউন্সিল (এমডেক) দপ্তর পরিদর্শন করেন। সেখানে তিনি এমডেকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে ডিজিটাল ইকোনমি সম্পর্কিত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। আলোচনাকালে প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশের উৎক্ষেণীয় ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’ থেকে তরঙ্গ বরাদ্দ নেয়ার আহবান জানালে এমডেক কর্তৃপক্ষ ইতিবাচক সাড়া প্রদান করেন। অপর দিকে, এমডেক-এর হেড অব কনসালন্টিং অ্যান্ড প্রজেক্টস- রাজা সেগারাম ডিজিটাল ইকোনমি সম্প্রসারণে উক্ত প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড উপস্থাপন করেন, যেসবের মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- মালয়েশিয়ায় আলী বাবা কর্তৃক স্থাপিত বিশ্বে প্রথম ‘ডিজিটাল ফ্রি ট্রেড জোন’।

এসব আলোচনার প্রেক্ষিতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ডিজিটাল ইকোমনি, ফ্রি ট্রেড জোন এবং ই-কমার্স সম্প্রসারণে বাংলাদেশ এবং মালয়েশিয়ার সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও দপ্তরের মধ্যে প্রয়োজনীয় চুক্তি স্বাক্ষরের ব্যাপারে একমত পোষণ করা হয়।

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক