ডাটাসফট আইওটি আর্মির প্রথম ব্যাচ প্রস্তুত

‘আইওটি আর্মি অব ৩০০’ এই শ্লোগান নিয়ে ডাটাসফট ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) ল্যাবের প্রথম ব্যাচের ৩০জন শিক্ষার্থীর প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাত্রার নানা সমস্যার প্রযুক্তি নির্ভর স্মার্ট সমাধান তৈরিতে কাজ করবে আওটি ল্যাবের এই শিক্ষার্থীরা।

২৪ এপ্রিল সোমবার বিকালে, রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটের থ্রিডি অডিটরিয়ামে সমাপনী ও সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পথে ডাটাসফট আইওটি ল্যাবের প্রশিক্ষিত এক্সপার্টরা সামনের দিনগুলোতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। আইওটি এক্সপার্টদের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার মান আরো উন্নত হবে। আমি আশা করি ডাটাসফট ঢাকাকে স্মার্টসিটিতে রূপান্তরের জন্য সরকারকে সহযোগিতা করবে।’

iot1

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ডাটাসফট সিস্টেমস বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব জামান, হাইটেক পার্ক এর প্রজেক্ট ডিরেক্টর শফিকুল ইসলাম, লিভারেজিং আইসিটি এর প্রজেক্ট ডিরেক্টর রেজাউল করিম, ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব) এর প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর এম জাহিরুল হক, দ্য ডেইলি স্টার এর সম্পাদক ও প্রকাশক মাহফুজ আনাম, এটিএন নিউজের হেড অব নিউজ মুন্নি সাহাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সাংবাদিকবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশ নেন ইউনিভার্সিটি অব কলম্বিয়ার প্রফেসর এবং ডাটাসফটের আইওটি প্রোগ্রামের ট্রেইনার ড. মাইকেল ওয়াং। আইওটি ল্যাবের সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছে ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব) এবং ডাটাসফট সিস্টেমস। আর্থিক সহায়তায় রয়েছে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি মন্ত্রণালয়।

আইওটি ল্যাবের বর্তমানে চলমান প্রজেক্টগুলো হল- পানির অপচয় রোধে স্বয়ংক্রিয় ওয়াটার মিটার স্কিমিং সিস্টেম, জলযান সুরক্ষা ব্যবস্থা, ইন্টারনেট অব থিংস মেডিসিন সিস্টেম, গাড়ি ও মোটর বাইকের অ্যান্টি থেফট সিস্টেম, স্মার্টসিটি ট্রান্সপোর্টেশন সিস্টেম, যানবহন পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা, নদী দূষণ নির্নয়, গার্মেন্টস বা ফ্যাক্টরিতে আগুন লাগা রোধ করা, স্মার্ট গ্যাস ডিটেকশন সিস্টেম, স্মার্ট ল্যাম্পপোষ্ট সিস্টেম ও স্মার্ট গার্বেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।

দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে ৩০০ জনকে পর্যায়ক্রমে আইওটি ল্যাবের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। যার মধ্যে প্রথম ব্যাচের ৩০ জন শিক্ষার্থীর প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। এই ৩০ জন শিক্ষার্থী ক্ষুদ্র গ্রুপে ভাগ হয়ে বিভিন্ন প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করছেন, যেখানে দেশের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান খোঁজা হচ্ছে ইন্টারনেট অব থিংসের সহায়তায়।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.