টাকা না দিলে গ্রামীণফোন ও রবির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: বিটিআরসি

আইন অনুযায়ী গ্রামীণফোন ও রবির সাথে সালিশের (মধ্যস্থতা) কোন সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআসি) চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলেছেন, পাওনা টাকা অপারেটরদের দিতেই হবে। অন্যথায় গ্রামীণফোন ও রবির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত রবিবার তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘গ্রামীণফোনের কাছে পাওনা আদায়ে বিটিআরসির আইন অনুযায়ী আরবিট্রেশনের কোনো উপায় নেই, তবে আলোচনার পথ খোলা রয়েছে। পাওনা টাকা অপারেটরদের দিতেই হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘গ্রামীণফোন সালিশের মাধ্যমে সুরাহা করার নামে বিষয়টি ঝুলিয়ে রাখতে চায় আমাদের সাথে আলোচনার পথ খোলা আছে। তারা যে কোনো সময় আসতে পারে’।

পাওনা টাকা না পেলে কি পদক্ষেপ নেয়া হবে এমন প্রশ্নের জবাবে বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেন, বিষয়টি সরকারের সিদ্ধান্ত। আইন অনুযায়ী এ ধরনের ক্ষেত্রে অপারেটরের লাইসেন্স বাতিলসহ অন্য পদক্ষেপ নেয়ার সুযোগ রয়েছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ৪ হাজার ৮৫.৯৫ কোটি টাকাসহ গ্রামীণফোনের কাছে সরকারের ১২ হাজার ৫৭৯.৯৫ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে।

অপরদিকে আরেক মোবাইল ফোন অপেরাটর রবির কাছ থেকে এনবিআর এর ১৯৭.২১ কোটি টাকাসহ ৮৬৭.২৩ কোটি টাকা পায় সরকার।

উল্লেখ্য, গত ৪ জুলাই পাওনা টাকা না দেয়ায় গ্রামীণফোনের ৩০ শতাংশ ও রবির ১৫ শতাংশ ব্যান্ডউইথ কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় বিটিআরসি।

বিটিআরসির এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে গ্রামীণফোন ও রবি।

এবিষয়ে রবির চিফ কর্পোরেট ও রেগুলেটরি কর্মকর্তা শাহেদ আলম বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি আরবিট্রেশনের মাধ্যমে বিবদমান বিষয়টি সমাধান করাই হলো সর্বত্তম পন্থা।

 -সিনিউজভয়েস/জিডিটি/জ/০৮ জুলাই /২০১৯

Please Share This Post.