টনিক অ্যাপে প্রিমিয়াম ও অ্যাডভান্স স্বাস্থ্যসেবা

গ্রাহকদের জন্য দেশের প্রথম সম্পূর্ণ ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা টনিক প্রিমিয়াম ও টনিক অ্যাডভান্স নিয়ে এলো গ্রামীণফোন ও টেলিনর হেলথ।

জনপ্রিয় সব কন্টেন্ট চ্যানেলের মাধ্যমে ওজন কমানো ও অভিভাবকত্বের মতো প্রতিদিনকার স্বাস্থ্যবিষয়ক টিপস দেয়া থেকে শুরু করে দেশের শীর্ষস্থানীয় ডাক্তারদের সঙ্গে অ্যাপয়েন্টমেন্ট নিশ্চিত করা, সর্বোচ্চ আড়াই লাখ পর্যন্ত হাসপাতাল খরচ বহন, স্বাস্থ্য ও সুস্থতা নিয়ে আধুনিক বাংলাদেশের পরিবার সমূহের প্রয়োজন পূরণে সহায়তা করবে টনিক প্রিমিয়াম ও অ্যাডভান্স।

টনিক অ্যাপের মাধ্যমে টনিক প্রিমিয়াম সদস্যরা অর্থ ও সময় সঞ্চয় করার পাশাপাশি, খুবই অল্প খরচে সর্বোত্তম স্বাস্থ্যসেবা নিতে পারবে।

পরিবারে নতুন সদস্যের আগমন কিংবা বাবা-মায়ের স্বাস্থ্যের যত্ন যেটাই হোক আমাদের জীবন যেকোনো মুহূর্তে অনেক বড় কিছু ঘটে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে, সর্বাধুনিক প্রযুক্তি, বিশ্বমান সম্পন্ন হাসপাতাল সেবা এবং হাতের নাগালেই শীর্ষস্থানীয় স্বাস্থ্যসেবাদাতাদের সঙ্গে অংশীদারিত্বের সুযোগ করে দিবে টনিক প্রিমিয়াম।

টনিক প্রিমিয়াম ও টনিক অ্যাডভান্সের আর একটি উল্লেখযোগ্য ফিচার হচ্ছে, ডক্টোরোলা লিমিটেডের সঙ্গে অংশীদারিত্বে তাৎক্ষণিকভাবে ডাক্তারের অ্যাপয়েনমেন্ট বুকিং করা। টনিক অ্যাপের মাধ্যমে টনিক সদস্যরা ২ হাজারের বেশি ডাক্তারের অ্যাপয়েনমেন্ট বুকিং দেয়ার সুযোগ পাবে।

এছাড়াও, প্রিমিয়াম সদস্যরা জরুরি ডাক্তারি পরামর্শের জন্য জনপ্রিয় এই ম্যাসেজিং অ্যাপের মাধ্যমে ব্যক্তিগত ও প্রয়োজনীয় বিষয় নিয়ে ডাক্তারের সঙ্গে চ্যাট করতে পারবে। জরুরি প্রয়োজনের ওপর ভিত্তি করে টনিক প্রমিয়ামে রয়েছে প্রতিদিন দেশের ৩০ জন শীর্ষ ডাক্তারের অ্যাপয়েনমেন্ট বুকিং দেয়ার সুযোগ।

মেডিকেল খরচ বেড়ে যাওয়ার কারণে স্বাস্থ্যসেবা এখন বোঝা হয়ে যাচ্ছে। এ বোঝা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য টনিক প্রিমিয়াম এর সদস্যদের হাসপাতাল খরচের (তিন বা তারও অধিক দিন হাসপাতালে থাকলে) ২৫ হাজার টাকা পরিশোধ করবে। সদস্যরা বছরে সর্বোচ্চ দশবার এ সুবিধা নিতে পারবে। এছাড়াও, প্রিমিয়াম সদস্যরা টনিক প্রিমিয়াম পার্টনার হাসপাতালে এক্সিকিউটিভ হেলথ চেক-আপে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্ট উপভোগ করতে পারবে এবং স্বাস্থ্যবিষয়ক পরামর্শের জন্য প্রতিমাসে ফোনে বিনা মূল্যে ডাক্তারের সঙ্গে ৯০ মিনিট কথা বলার সুযোগ পাবে।

গত বছর টনিকের ফ্রি সংস্করণ চালু হওয়ার পর থেকে বিনা মূল্যে এ সেবাগ্রহণে ৩০ লাখ মানুষ টনিক সাবস্ক্রাইব করেছে। গত এক বছর ধরে টেলিনর হেলথ মানুষের ওপর থেকে স্বাস্থ্যসেবার খরচের বোঝা কমানো নিয়ে কাজ করেছে। পাশাপাশি, তাদেরকে অতি সহজে মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবা প্রদান নিয়েও কাজ করছে।

টেলিনর হেলথের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিদ রহমান বলেন, ‘টনিক বেসিকের অভাবনীয় সাফল্যের পর গ্রাহকদের জন্য পরবর্তী প্রজন্মের সেবা নিয়ে আসতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। টনিক বাংলাদেশের গ্রাহকদের জন্য অভূতপূর্ব স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে এসেছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘যারা আমাদের ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা থেকে আর একটু বেশি সুবিধা চান তাদের জন্যই আমরা এ নতুন সেবা নিয়ে এসেছি।’

যেকোনো গ্রামীণফোন গ্রাহক মাসিক মাত্র ২৯৮ টাকার বিনিময়ে টনিক প্রিমিয়াম সেবা নিতে পারবে। একইসঙ্গে তাদের সুযোগ থাকবে টনিক অ্যাডভান্স সুবিধা নেয়ার। এক্ষেত্রে, অ্যাডভান্স সদস্যরা বার্ষিক ১ লাখ টাকার মেডিকেল কাভারেজ সুবিধা পাবেন মাসিক মাত্র ১২৮ টাকার বিনিময়ে এবং আগের মতোই টনিক বেসিক সদস্যদের বিনা মূল্যে বার্ষিক ৪ হাজার টাকার মেডিকেল ব্যয় বহন করবে টনিক।

টনিক প্রিমিয়াম কিংবা টনিক অ্যাডভান্সের সঙ্গে যুক্ত হওয়া খুবই সহজ। *৭৮৯# ডায়াল করে, টনিকের অ্যাপ ডাউনলোড (goo.gl/nSufn1) করে কিংবা টনিকের ওয়েবসাইটে (www.mytonic.com) গিয়ে টনিক সদস্য হওয়া যাবে। আর এক্ষেত্রে সহায়তা পাওয়া যাবে গ্রামীণফোন কেন্দ্রে কিংবা ৭৮৯ ডায়াল করে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক