জিপি অ্যাকসেলেরেটর প্রথম ব্যাচের সফল সমাপ্তী 

[ঢাকা : গতকাল জিপি হাউজে অনুষ্ঠিত জিপি অ্যাকসেলেরেটর-এর ডেমো ডে-তে একশজনেরও বেশি বিনিয়োগকারী ও বিশেষজ্ঞদের সামনে তাদের ব্যবসায়িক ধারণার উপস্থাপন করলেন জিপি অ্যাকসেলেরেটর প্রোগ্রামের পাঁচ স্টার্টআপ।
‘স্টার্টআপ বাজার’ নামক একটি ইন্ট্রোডাকটরি সেশনের মাধ্যমে ডেমো ডে শুরু হয়। এ সেশনের মাধ্যমে উপস্থিতবৃন্দ জিপি স্টার্টআপের শীর্ষ পাঁচটি দলের সাথে আলোচনা ও মতবিনিময় করেন। এ সেশনের পরে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব শেঠি আনুষ্ঠানিকভাব ডেমো ডে র উদ্বোধন করেন।

GP CEO

                                            বক্তব্য রাখছেন গ্রামীণফোন সিইও রাজীব শেঠি।

বক্তব্যে রাজীব শেঠি বলেন,’জিপি অ্যাকসেলেরেটর প্রোগ্রাম সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য আমি এ প্রোগ্রামের প্রথম ব্যাচকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। গ্রামীণফোন এর গ্রাহকদের ডিজিটাল লাইফস্টাইলে নতুন সেবা যোগ করতে ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমি বিশ্বাস করি, দেশের জন্য উপযুক্ত অ্যাপ্লিকেশন ও সেবা উন্নয়নের মাধ্যমে বাংলাদেশে ডিজিটাল যুগের সূচনা করতে এ ধরনের স্টার্টআপগুলোর মতো তরুণ উদ্যোক্তারা অংশীদার হওয়ার মাধ্যমে আমাদের সহায়তা করতে পারে।’
গত বছর অক্টোবরে, বাংলাদেশে প্রযুক্তি বিষয়ে পাঁচ তরুণ ও মেধাবী উদ্যোক্তা খুঁজে বের করতে এসডি এশিয়ার সাথে যৌথভাবে জিপি অ্যাকসেলেরেটর প্রোগ্রাম শুরু করে গ্রামীণফোন। একটি কঠোর ও প্রতিযোগিতামূলক বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জিপি অ্যাকসেলেরেটর টিম শীর্ষ পাঁচ স্টার্টআপ নির্বাচন করে। গত ৭ ফেব্রুয়ারি প্রথম ব্যাচের স্টার্টআপগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে মেন্টরিং প্রোগ্রামে অংশ নেয়।
শীর্ষস্থানীয় কোনো প্রতিষ্ঠানকে সঙ্গে নিয়ে এটা ছিলো বাংলাদেশে স্টার্টআপদের জন্য প্রথমবারের মতো আয়োজিত মেন্টরিং প্রোগ্রাম। সম্পূর্ণ লিজিস্টিক সহায়তাসহ শীর্ষ পাঁচ স্টার্টআপ (Ennovation, Sheba, Repot, Kandy and Share) তাদের ব্যবসা শুরু করার জন্য ১০ লাখ টাকা ও জিপি হাউজের ভেতর কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন। এছাড়াও, স্টার্ট আপ দলগুলো এসডি এশিয়ার স্টার্ট আপ বিশেষজ্ঞ প্যানেলের মাধ্যমে মেন্টর করানো হয়।
ইনোভেশোন লিমিটেড একটি ওয়েব ডিজাইন প্রতিষ্ঠান। যেসব ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে সর্বদা সক্রিয় থাকতে চান তাদের জন্য ওয়ান-স্টপ সল্যুশন দেয় ইনোভেশন লিমিটেড
মোবাইলে ইউজার লক স্ক্রিন, টাইম সেভিং টুলসসহ লক স্ক্রিনকে ইন্টেলিজেন্ট পার্সোনালাইজেশন মোবাইল অ্যাডভার্টাইজিং অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আরো গ্রাহক উপযোগী করে থাকে ক্যান্ডি। নিত্যনৈমত্তিক গৃহস্থালি সমস্যা সমাধানে সেবামূলক প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে সেবা।  শেয়ার হচ্ছে একটি কারপুলিং অ্যাপ্লিকেশন, ঢাকা শহরে গাড়িতে চলাফেরা করা নিত্য-নৈমিত্তিক একটি ঘটনা। সিএনজিতে চলতে মিটার অনুযায়ী ভাড়া প্রদান করার ক্ষেত্রে কারপুলিং এমনই একটি অ্যাপ্লিকেশন। মিটার নষ্ট থাকলেও এ অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে যাত্রীর ভাড়া নির্ধারণ করা যায়।
রেপ্টো হচ্ছে একটি অনলাইন কোর্সের এডুকেশন সেন্টার। যেখানে ওয়েব টুলের মাধ্যমে বিভিন্ন কোর্স তৈরি করে, কোর্সগুলো আবার অনলাইনে বিক্রি করতে পারবেন আগ্রহীরা।
এ নিয়ে গ্রামীণফোনের হেড অব ট্রান্সফরমেশন কাজী মাহবুব হাসান বলেন, ‘জিপি অ্যাকসেলেরেটর এমন একটি প্রোগ্রাম যা আমাদের মনোবলকে ধরে রাখবে, বিনিয়োগকারীদের আগ্রহী করে তুলবে এবং বাংলাদেশে অবিশ্বাস্য রকমের স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম তৈরিতে সহায়তা করবে এবং এ ইকোসিস্টেম নিজে নিজেই চলতে থাকবে। সবকিছু ঠিক থাকলে আমাদের চারপাশের সবকিছুকে পরিবর্তন করার সম্ভাবনা রয়েছে এসব প্রতিষ্ঠানের। এর মাধ্যমে গ্রামীণফোন আজ ‘সমাজের ক্ষমতায়নে’ এর প্রতিশ্রুতি পূরণের এক নতুন মাইলস্টোন ছুঁয়েছে।’
শীর্ষ পাঁচ স্টার্টআপের জন্য এসডি এশিয়া অনেকগুলো মেন্টরশিপ সেশন ও পিচিং সেশন আয়োজন করেছে। গ্রামীণফোন অ্যাকসেলেরেটরের পাঁচটি প্রতিষ্ঠান প্রতি সপ্তাহে ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের ওপর আয়োজিত সেশনে অংশগ্রহণ করে। এ ধরনের শিক্ষামূলক সেশনে প্রাসঙ্গিক বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।
এসডি এশিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মুস্তাফিজুর রহমান খান বলেন, ‘ডেমো ডে স্টার্টআপগুলোর জন্য একটি বিশেষ সুযোগ। গ্রামীণফোনকে নিয়ে এ অ্যাকসেলেরেটর প্রোগ্রাম শুরু করতে পেরে এসডি এশিয়া ভাগ্যবান অনুভব করছে। আমরা বিশ্বাস করি, এ প্রোগ্রাম শুধুমাত্র স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়নেই কাজ করবে না পাশাপাশি বাংলাদেশে ডাটা পরিচালিত প্রতিষ্ঠানগুলোর সম্ভাবনা অনুধাবনে গ্রামীণফোনকে সহায়তা করবে। এবার অ্যাকসেলেরেটর প্রোগ্রাম শেষ হওয়ার পর আমরা সামনের আগস্টে পরবর্তী ব্যাচের কাজ শুরু করবো।’
ডেমো ডে-তে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ স্টার্টআপগুলোর ব্যবসায়িক ধারণা ও উপস্থাপনা নিয়ে উচ্চকিত প্রশংসা করেন। তারা বাংলাদেশে স্টার্টআপ ও একইসাথে বিনিয়োগকারীদের জন্য সম্ভাবনার সুযোগ বয়ে আনা একটি প্রোগ্রাম আয়োজনের জন্য গ্রামীণফোন ও এসডি এশিয়াকে ধন্যবাদ জানান।
জিপি অ্যাকসেলেরেটর ডেমো ডে এমন একটি অনুষ্ঠান যেখানে বাংলাদেশি স্টার্টআপগুলো জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের সামনে বিশেষ পরিচিতি পান। অনুষ্ঠানে বিনিয়োগকারী, উদ্যোক্তা ও সামাজিক গণমাধ্যম বিশেষজ্ঞরা উপস্থিত থেকে বাংলাদেশি স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম বিষয়ে লক্ষ্যপাত করেন।

গোলাম দাস্তগীর তৌহিদ

Please Share This Post.