‘জাস্ট কজ থ্রি’ পাওয়ার ফ্যান্টাসি গেম


‘জাস্ট কজ থ্রি’ গেমটিকে এক কথায় বলা যায় একটি পাওয়ার ফ্যান্টাসি গেম। এই গেমে গেমারকে স্থাপন করা হয় চরম প্রতিকূল একটি পরিবেশে, যেখানে নানা ধরনের বস্তুকে ধ্বংস করে তাকে নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে হয়। ধ্বংসের খেলায় মেতে উঠে সৃষ্টিকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য তার হাতে তুলে দেয়া হয় বিপুল সংখ্যক উপকরণ, আর এসব উপকরণের সৃষ্টিশীল ব্যবহারের ওপরই নির্ভর করছে গেমে তিনি কতটুকু সফলতা পাবেন সেটি। গেমের মূল চরিত্র হচ্ছে রিকো রড্রিগুয়েজ, যার ভ’মিকায় খেলতে হবে গেমারকে।

কাল্পনিক একটি রাষ্ট্র রিপাবলিক অব মেডিসিতে সেবাস্টিয়ানো ডি র‌্যাভেলো নামে ভয়ঙ্কর এক একনায়কের শাসনকালে রিকোকে নামতে হয় গেমযুদ্ধে। গেমটিতে যে মনে রাখার মত কোনো গল্প আছে তা নয়, তবে গেমারের সামনে আকর্ষণ হিসেবে থাকছে বিদ্রোহীদের পক্ষ নিয়ে ডি র‌্যাভেলোর সামরিক বাহিনীর একের পর এক ক্যান্টনমেন্ট ধ্বংস করার টার্গেট। রিকো রড্রিগুয়েজকে বলা যায় পুরুষালী অ্যাকশন স্টার আর কমিক বুক কারেক্টারের একটি সংমিশ্রণ।

উইংস্যুট, প্যারাসুট, গ্র্যাপলিং জুক ইত্যাদি কমান্ডো স্টাইল হাতিয়ার ব্যবহার করে তাকে চালিয়ে যেতে হয় তার সংগ্রাম। শুরুতে গেমারের একটু সমস্যা হতে পারে গেমটির ইউনিক স্টাইলের সাথে মানিয়ে নিতে, তবে মনোযোগ দিয়ে খেললে গেমের কলাকৌশলগুলো আয়ত্ত করতে বেশি সময় লাগবে না। একজন কমান্ডোকে চরম প্রতিকূল অবস্থায় টিকে থাকার জন্য যেসব পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হয় এই গেমে রিকো রড্রিগুয়েজরূপী গেমারকেও ঠিক সেসব পরীক্ষাতেই পাশ করতে হবে।

1

এজন্য হেলিকপ্টার থেকে লাফিয়ে পড়া, শত্রুশিবিরের ভেতর বিচরণ করা এবং শত্রুর ক্যাম্পে হানা দেয়ার মত অসমসাহসী কাজও করতে হবে হরহামেশাই। গেমের আহবহটি দারুণ। যখনতখন আকাশে উড়ে যাচ্ছে শত্রু হেলিকপ্টার, গেমের পর্দাজুড়ে একের পর এক কানফাটানো বিস্ফোরণ ঘটবে, গ্রেনেড লঞ্চার আর ভারি অস্ত্রের গর্জনে কেঁপে উঠবে আকাশ  এই পরিস্থিতিতেও যদি গেমার গেমের রোমাঞ্চে বুঁদ হতে না পারেন তাহলে আর পারবেন কিসে! গেমটিতে প্রথাগত অস্ত্রের পাশাপাশি অপ্রথাগত আধুনিক সব অস্ত্রও ব্যবহারের সুযোগ আছে। বিশেষভাবে বলতে হয় অস্ত্রে ভিন্নধর্মী প্রয়োগের মাধ্যমে ব্যতিক্রমী ফল লাভের কথা। যেমন, গ্র্যাপলিং হুক দিয়ে শত্রুর হেলিকপ্টারকে টেনে মাটিতে নামিয়ে আনার মত ঘটনাকে।

গেমের একটি বিশেষ দৃশ্যের কথা বললে এর ব্যতিক্রমী চরিত্রের ব্যাপারটি পরিষ্কার হবে। এক পর্যায়ে শত্রুর এক ঝাঁক হেলিকপ্টার রিকোকে ধাওয়া করে। অন্য কোনো গেম হলে রিকো হয়ত কেবল রকেট লঞ্চার ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করেই হেলিকপ্টারগুলোকে ধ্বংস করতে পারত, তবে এই গেমের ভিন্নধর্মী চরিত্রের সাথে মিল রেখে গ্র্যাপলিং হুক দিয়ে একটি কপ্টারের চালককে নামিয়ে এনে তার জায়গায় রিকো নিজেই কপ্টার চালানো শুরু করে। এই গেমের আরেকটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এখানে তাৎক্ষণিকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে উদ্ভাবনী সব কৌশল প্রয়োগ করার সুযোগ আছে। আর এর মাধ্যমে গেমের পরিণতির মধ্যেও আসে নানা বৈচিত্র্য।

2

গেমটির সঙ্গীত, চরিত্র সৃজন, কমব্যাট সিস্টেম সবই চমৎকার। ঘণ্টার পর ঘণ্টা রোমাঞ্চের মধ্যে বুঁদ হয়ে থাকার জন্য এর চেয়ে ভাল গেম এ মুহূর্তে কমই আছে।

গেমটি খেলতে যা লাগবে
অপারেটিং সিস্টেম: উইন্ডোজ ৮/৭ এসপি১/ভিস্তা এসপি২
প্রসেসর: ইন্টেল কোর টু ডুয়ো ই৬৬০০, ২.৪ গিগাহার্টজ
র‌্যাম: ৩ গিগাবাইট
গ্রাফিক্স: ইন্টিগ্রেটেড গ্রাফিক্স
সাউন্ড: ইন্টিগ্রেটেড
মনিটর: ১২৮০৮*৭২০ পিক্সেল ন্যূনতম
ডিরেক্টক্স: ডিএক্স৯
ফ্রি হার্ড ডিস্ক স্পেস: ২ জিবি

সিনিউজভয়েস/ডেক্স