জাপানের অংশগ্রহণে সফটএক্সপোতে জাপান ডে

টেকনোলজি ফর প্রসপারিটি স্লোগান নিয়ে গতকাল আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) শুরু হয়েছে দেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের জনপ্রিয় প্রদর্শনী ১৫তম বেসিস সফটএক্সপো ২০১৯। প্রথমদিনের সকল সেমিনারে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের পর আজ দ্বিতীয় দিনেও সফলতার সঙ্গে পালিত হচ্চে জাপান ডে সহ অন্যান্য বিশেষ সেমিনার।
জাপানের বাজারে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তির বাজার প্রসারে যৌথভাবে কাজ করছে সরকার এবং বেসরকারী প্রতিষ্ঠানসহ বেসিস। জাপানে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে বেসিস মেলার ২য় দিনকে জাপান ডে হিসাবে ঘোষণা করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় বানিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশী। অনুষ্ঠানে বক্তারা জানান, জাপানে বাংলাদেশের বাজার বৃদ্ধিতে খোলা হচ্ছে বাংলাদেশের ডেস্ক একই ভাবে বাংলাদেশে জাপানের ডেস্ক থাকবে। বর্তমানে জাপানে বাংলাদেশে জাপানের চলমান কার্যাবলি যেমন- জাইকার সহায়তায় মেট্রোরেল, কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র, পোর্ট, বিভিন্ন ইনফ্রাস্টাকচার, রিনিউয়েবল এ্যানার্জি ডেভেলপমেন্ট, বাংলাদেশের বর্তমান জিডিপিতে রিলায়াবল পাওয়ার এর ব্যবহার উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, জাপান বাংলাদেশ সর্ম্পকের উত্তর উত্তর উন্নতি হচ্ছে যা দেশের অর্থনীতি কে সমৃদ্ব করবে।

প্রধান অথিতির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, জাপানের সাথে বাংলাদেশের সর্ম্পক বহুপুরানো এবং বাংলাদিশের সার্বিক উন্নয়নে জাপানের সহযোগীতা বরাবরই ইতিবাচক। সরকার দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে খুবই গুরত্ব দিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করেছে এবং এর ফলাফল ও ইতিবাচক। সম্প্রতি জাপানকে বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম সহায়তা প্রদান এবং বাংলাদেশের সম্ভাবনা বিবেচনায় সরকার জাপানকে ৪০০ হেক্টর জমি প্রদান করা প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে।

মন্ত্রী আরো বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি ছাড়াও অন্যান্য বাণিজ্য প্রসারে ও জাপান বাজার বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আগামী ৫ বছরে এ সর্ম্পকের আরো উন্নতি হবে বলে আমি মনে করি। এ সর্ম্পক উন্নয়নে এ ধরনের আয়োজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
জাপান ডে এর অন্যান্য আয়োজন সমূহ হলঃ জাপানে ক্যারিয়ার গড়ার লক্ষ্যে করণীয়, এক্সিপেরিয়েন্স শেয়ারিং সেশন
জাইকা-আইটিইই সনদ বিতরণি অনুষ্ঠান।

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/২১এম/১৯

 

Please Share This Post.