জাতীয় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার জন্য আরো ৭১ জন নির্বাচিত

২০২০ সাল নাগাদ বিশ্বজুড়ে প্রায় ২০ লাখ কম্পিউটার প্রোগ্রামিং-এর ঘাটতি হবে। সেই সুযোগ কাজে লাগানো এবং দেশে আগামীতে গড়ে উঠা হাইটেক পার্ক সমূহের জন্য নিজেদের দক্ষতা প্রমাণে ছোটবেলা থেকে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং-এ পারদর্শিতা অর্জন করতে হবে।

১৬ মার্চ, টাঙ্গাইল মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীদের এ আহবান জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আলাউদ্দিন।

এছাড়া দিনব্যাপী আয়োজিত কুইজ ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার বিভিন্ন পর্বে আরও উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইলের জেলা প্রসাশক মো. মাহবুব হোসেন, পুলিশ সুপার মো. মাহবুব আলম, বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি ড. মোহাম্মদ মতিউর রহমান প্রমুখ।

প্রতিযোগিতায় টাঙ্গাইল অঞ্চলের বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ৯৬০ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। পরে এদের মধ্যে ৭১ জন বিজয়ী হয়ে জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণের জন্য মনোনীত হয়।

উল্লেখ্য যে, দেশের হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংকে জনপ্রিয় ও তাদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ তৃতীয়বারের মতো জাতীয় হাইস্কুল আইসিটি কুইজ ও প্রোগ্রমিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে।

১৬টি আঞ্চলিক ও ৩টি উপজেলা পর্যায়ের বিজয়ীরা ঢাকায় জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেবে। এর পর ধারাবাহিক নির্বাচনের মাধ্যমে ইরানের তেহরানে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশের সদস্যদের নির্বাচন করা হবে। বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) প্রতিযোগিতার বাস্তবায়ন সহযোগী হিসাবে এবং কোড মার্শাল জাজিং প্ল্যাটফর্ম হিসাবে ব্যহৃত হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ স্থানীয় আয়োজক হিসাবে সম্পৃক্ত রয়েছে।

আগামী ১৮ মার্চ চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাক্রমে চট্টগ্রাম ও বরিশাল অঞ্চলের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতার সময়সূচি www.nhspc.org এই ওয়েবসাইট ও www.facebook.com/nhspcbd ফেসবুক পেজে পাওয়া যাবে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.