জাতীয় ক্রিকেট লিগের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন

২০তম জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) টাইটেল স্পন্সর হয়েছে ওয়ালটন। ১ অক্টোবর থেকে শুরু হচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেটের প্রথম শ্রেনীর এই আসর। এই নিয়ে টানা অষ্টমবারের মতো এনসিএলের টাইটেল স্পন্সর হলো ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন।

২৯ সেপ্টেম্বর, মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কনফারেন্স রুমে এ বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিসিবির টুর্নামেন্ট কমিটির মেম্বার সেক্রেটারি রাকিব হায়দার, ওয়ালটনের ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম এবং অপারেটিভ ডিরেক্টর শাহাজাদা সেলিম।

রাকিব হায়দার বলেন, আন্তর্জাতিক ম্যাচ সবাই স্পন্সর করতে আগ্রহী থাকলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে স্পন্সর পাওয়া যায় না। ওয়ালটন এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। তারা দীর্ঘদিন ধরে ঘরোয়া ক্রিকেটে আমাদের পাশে আছে। আমি ওয়ালটনকে ধন্যবাদ জানাই। প্রথম ২ রাউন্ডে জাতীয় দলের খেলোয়াড়েরা অংশ নিচ্ছেন বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশে ক্রিকেটের উন্নতিতে সংবাদকর্মীদেরও সমান অবদান আছে উল্লেখ করে তিনি তাদের অনুরোধ করেন যাতে এই লিগের গুরুত্ব বিবেচনায় সংবাদকর্মীরা সর্বোচ্চ কাভারেজ নিশ্চিত করেন। এতে বাংলাদেশের ক্রিকেট লাভবান হবে।

টানা তৃতীয়বার এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলার জন্য উদয় হাকিম বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলকে শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, ফাইনালে ভারতের কাছে আমরা শেষ বলে হেরে গিয়েছি। এর কারণ সিনিয়র কয়েকজন প্লেয়ারের অনুপস্থিতি। তাদের জায়গা পূরণের মতো যোগ্য ক্রিকেটারের অভাব অনুভূত হয়েছে। বাংলাদেশের জাতীয় দলকে পর্যাপ্ত ক্রিকেটার যোগান দেয়ার জন্য এনসিএল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই লিগ ভবিষ্যত ক্রিকেট তারকা তৈরির একটি প্লাটফর্ম।

এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টে ওয়ালটনকে পৃষ্ঠপোষক হতে সুযোগ দেয়ার জন্য তিনি বিসিবিকে ধন্যবাদ জানান। তিনি দর্শক-সাংবাদিকদের অনুরোধ করেন যেন তারা মাঠে গিয়ে খেলা দেখেন। এতে ক্রিকেটারগণ উৎসাহিত হবেন। জাতীয় দলের খেলোয়াড়েরা থাকায় এবার এনসিএল আকর্ষণীয় হবে বলে আশা করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে জানানো হয় দেশের মোট ৮টি ভেন্যুতে এবারের জাতীয় ক্রিকেট লিগের খেলা হবে হোম এন্ড এ্যাওয়ে ভিত্তিতে। গতবারের মতো এবারও দুই স্তরে জাতীয় ক্রিকেট লিগ হবে। টায়ার ওয়ানে খেলবে গতবারের চ্যাম্পিয়ন খুলনা, রংপুর, বরিশাল এবং রাজশাহী বিভাগ। গতবার টায়ার টু থেকে টায়ার ওয়ানে উত্তীর্ণ হয়েছে রাজশাহী বিভাগ। টায়ার টুতে অংশগ্রহণকারী দলগুলো হচ্ছে ঢাকা, ঢাকা মেট্রো, চট্টগ্রাম বিভাগ ও সিলেট বিভাগ।

ডাবল লিগ পদ্ধতিতে এবারের প্রতিযোগিতায় প্রতিটি দল নিজেদের টায়ারের অপর তিনটি দলের সাথে দুইবার মুখোমুখি হবে। টায়ার টু এর চ্যাম্পিয়ন দল আগামী মৌসুমে টায়ার ওয়ানে উত্তীর্ণ হবে। আর টায়ার ওয়ানে পয়েন্ট তালিকায় তলানিতে থাকা দল টায়ার টুতে নেমে যাবে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক
Please Share This Post.