জাতীয় অ্যাপ স্টোর হলো বিডিঅ্যাপস

দেশের বৃহত্তম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন প্ল্যাটফর্ম বিডি অ্যাপসকে (www.bdapps.com ) জাতীয় অ্যাপ স্টোর হিসেবে ষোষণা দিয়েছেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক, এমপি। আজ রাজধানীর আগারগাঁও-য়ে আইসিটি বিভাগ ও রবির মধ্যে এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

এখন থেকে শুধু রবি নয়, যে কোন মোবাইল ফোন অপারেটর অথবা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের অ্যাপ ডেভেলপাররাও এই প্ল্যাটফর্মটিতে তাদের অ্যাপ জমা দিতে পারবেন। এছাড়া ডেভেলপারদের আয়কর মওকুফ এবং অ্যাপ’র ওপর ভ্যাট বিলুপ্তকরণ নিয়ে আইসিটি ডিভিশন কাজ করবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

উদ্ভাবনী মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তিখাতে উদ্যোক্তা তৈরিতে সহায়তা করতে সরকারের আইসিটি বিভাগের সাথে কাজ করবে টেলিকম অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড। দেশের বৃহত্তম মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন প্ল্যাটফর্ম বিডি অ্যাপসের (www.bdapps.com) মাধ্যমে ডিজিটাল শিক্ষা ও উদ্যোক্তা তৈরির এই কাজটি হবে। বিডি অ্যাপসে স্থানীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলেপাররা তাদের তৈরি অ্যাপ হোস্ট করে তা বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

পাঁচ বছরের জন্য আইসিটি বিভাগ ও রবির সমঝোতা চুক্তিতে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ এবং রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ। চুক্তির মেয়াদ নির্ধারিত পাঁচ বছরের পরেও প্রয়োজন অনুসারে বৃদ্ধির সুযোগ থাকবে।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ফলে কর্মক্ষেত্রগুলোতে কায়িক শ্রমের পরিমাণ কমে স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা চালু হবে। এই পরিস্থিতির সাথে খাপ খাওয়ানোর জন্য আমাদের ডিজিটাল দক্ষতা বিকাশের বিকল্প নেই। উভয় সংস্থা স্থানীয় যুব সমাজে উদ্যোক্তা তৈরি এবং ডিজিটাল দক্ষতা বিকাশকে উৎসাহিত করতে ডেভলপার বান্ধব নীতি প্রণয়ণ এবং দক্ষ ডিজিটাল উদ্যোক্তা  শ্রেণি তৈরিতে নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করবে।

আইসিটি বিভাগ এবং রবি ইতিমধ্যে প্রোগ্রামিং ভাষায় দক্ষ এবং যোগ্য কর্মীদের জন্য বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য সম্মত হয়েছে। এর পাশাপাশি আইসিটি বিভাগ সকল প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে রবিকে অন্তর্ভূক্ত করবে, যাতে করে সকল অ্যাপসের ন্যায্য রাজস্ব ভাগাভাগির সুযোগ নিশ্চিত করা সম্ভব হয়।

প্রধান অতিথি হিসাবে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন,“আমাদের সমস্ত উদ্যোগ এবং প্রকল্পগুলোর মূল ফোকাস- যুবসমাজ, আইসিটি এবং কর্মসংস্থান। এই চুক্তির মাধ্যমে ডেভেলপাররা আইসিটি বিভাগের বর্তমান প্রশিক্ষণ সুবিধা পাবেন এবং বিডিঅ্যাপসের মাধ্যমে তাদের দক্ষতা গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানোর মাধ্যমে আর্থিকভাবেও লাভবান হবেন। সরকার বিডিঅ্যাপসের সাথে একত্রিত হয়ে দেশের গতিশীল যুবসমাজকে ডিজিটাল উদ্ভাবন ত্বরান্বিত করাবে।”

বিডিঅ্যাপস’র আসাধারণ অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, অ্যাপ ডেভেলপার হিসাবে ক্যারিয়ার নির্বাচনে সারা দেশের  তরুণ প্রজন্ম এবং উদ্যোক্তাদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হবে বিডিঅ্যাপস।

তিনি আরও আশা ব্যক্ত করেন যে, শুধু রবি নয় অন্যান্য অপারেটরের গ্রাহকরাও বিডিঅ্যাপসের সাথে যুক্ত হয়ে বাংলাদেশি ডেভেলপারদের তৈরি উদ্ভাবনী অ্যাপ্লিকেশন উপভোগ করতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, আইসিটি বিভাগের সাথে কাজ করার সুযোগে তরুণ প্রজন্মের জন্য একটি স্বাবলম্বী অ্যাপ্লিকেশন ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তোলার স্বপ্ন বাস্তবতার দিকে আরো এগিয়ে যাবে। এই চুক্তির মাধ্যমে বিডিঅ্যাপস অ্যাপ্লিকেশন ডেভালপারদের জন্য আইসিটি বিভাগের হাব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে। যার ফলে যুবসমাজের ডিজিটাল দক্ষতা তৈরিতে সকল  আইসিটি বিভাগের প্রতিষ্ঠান; যেমন- হাই-টেক পার্ক, ডিজিটাল ল্যাব এবং অন্য সুযোগসুবিধারও ব্যবহার আরো সহজ হবে। এর মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশের উন্নয়নে  তরুণদের উল্লেখযোগ্য অবদান আরো বিস্তৃত হবে। ”

তিনি বলেন, অ্যাপ ডেভেলপমেন্টকে উৎসাহিত করতে বিডিঅ্যাপস ডেভেলপারদের জন্য প্রথম উইজার্ড ভিত্তিক অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন ডেভলপমেন্ট সলিউশন নিয়ে আসছে। যা সকল অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের উপর ব্যাপক প্রভাব তৈরিতে সাহায্য করবে। আমরা আনন্দের সাথে বলতে চাই, বিডিঅ্যাপস ডেভেলপারদের প্রাথমিক মার্কেটিংয়ের জন্য বিনিয়োগ যোগান দিতে আমরা একটি তহবিল চালু করছি। আমরা সরকারের কাছে অনুরোধ করবো তরুণ এবং যোগ্য ডেভেলপারদের নিজস্ব ব্যবসা শুরুতে কর ছাড়ের সুযোগ করে দিতে। যার দ্বারা দেশব্যাপী উদ্ভাবনী কেন্দ্রিক অর্থনীতিতে এক নতুন মাত্রা যোগ করবে।

চুক্তির আওতায় আইসিটি বিভাগ বিডিঅ্যাপস সাথে সারা দেশে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে বিশেষ বুট ক্যাম্প এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করবে। অনুষ্ঠানগুলির মাধ্যমে বিডিঅ্যাপস দেশের সকল আইসিটি ল্যাব ব্যবহার করে সম্ভাব্য ডিজিটাল উদ্যোক্তা এবং ফ্রিল্যান্সারদের অনবোর্ড করার কাজ ত্বরান্বিত করতে সক্ষম হবে। আইসিটি বিভাগ চেষ্টা করবে অন্যান্য অপারেটর মোবাইল ব্যবহারকারীদের এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি ব্যবহারের সুযোগ তৈরি করতে এবং এই লক্ষ্য অর্জনে বিডিঅ্যাপস তার অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে কাজ করবে।

আইসিটি বিভাগ এবং রবি নতুন পাঠ্যক্রম এবং প্রশিক্ষণ কর্মসূচি তৈরিতে একসাথে কাজ করবে। যাতে নতুন প্রজন্ম বিডিঅ্যাপস প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে তাদের উদ্ভাবনকে গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দিতে আরো বেশি উৎসাহিত হয়।

প্রযুক্তি-বান্ধব তরুণ উদ্যোক্তাদের ডিজিটাল উদ্যোক্তা হিসাবে গড়ে ওঠার জন্য সরকারের  আইসিটি বিভাগের ইনকিউবেশন  লোকেশনের  সঠিক ব্যবহার এবং  ডিজিটাল শিক্ষার বিস্তারেও  সহযোগিতা করবে রবি। যাতে করে তরুণরা  আইসিটি বিভাগের সহজলভ্য ডিজিটাল অবকাঠামোর ব্যবহার করে নিজেদের সমৃদ্ধ করতে পারে।

বিডিঅ্যাপসের ওয়েবসাইটে বর্তমানে ১২ হাজারের বেশি ডেভেলপারের পাশাপাশি ২৩ হাজারের বেশি অ্যাপ রয়েছে। যার মধ্যে ২০ শতাংশই নারী ডেভেলপার। বিডিঅ্যাপসে একজন ডেভেলপার প্রতি মাসে সর্বাধিক ২ লক্ষ টাকা উপার্জন করছেন এবং ৩০০ এরও বেশি ডেভেলপার পতি মাসে ৩০ হাজার টাকা আয় করছেন। গত পাঁচ বছরে, বিডিঅ্যাপস এই ডিজিটাল যুগে একটি আত্মনির্ভর প্রজন্ম গড়ে তুলতে ডেভেলপারদের মধ্যে ৫৫ কোটি টাকারও বেশি অর্থ বিতরণ করেছে। যে কোনও (প্রোগ্রামার এবং নন-প্রোগ্রামার উভয়ই) http://dev.bdapps.com/  ওয়েবসাইটের এর মাধ্যমে অ্যাপ্লিকেশন তৈরি এবং প্রকাশের যাত্রা শুরু  করতে পারবেন। যে কোনও চ্যালেঞ্জ / সাহাজের জন্য ডেভেলপার্সরা যে কোন সময় যোগাযোগ করতে পারবেন এই ইমেইল: : (support@bdapps.com )।

উক্ত অনুষ্ঠানে আহমেদ আরমান সিদ্দিকী, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট, ভ্যাস এন্ড নিউ বিজনেস,অনামিকা ভক্ত , এক্সিকিউটিভ  ভাইস প্রেসিডেন্ট, কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স এন্ড মিডিয়া কমিউনিকেশন্স, শরীফ শাহ জামাল রাজ, ভাইস প্রেসিডেন্ট, পাবলিক অ্যাফেয়ার্স সহ অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post.