চিকিৎসকদের জন্য ড্যাফোডিলের প্রেসক্রিপশান সফটওয়্যার ও অ্যাপস

ই-কিউর প্রেসক্রিপশন একটি সময়োপযোগী ডিজিটাল সল্যুশন যা ডিজিটালাইজড প্রেসক্রিপশন সমাধানে চিকিৎসকদের সহযোগিতা করবে। এটি হাইকোর্টের সার্কুলারের সঙ্গে ড্যাফোডিল সফটওয়্যার লিমিটেড (ডিএসএল) এর একটি যুগপযোগি উদ্যোগ যা জানুয়ারি ০৯, ২০১৭ তারিখ থেকে ডাক্তাদের সঠিকভাবে প্রেসক্রিপশন লেখার নির্দেশ দিয়েছে। হাইকোর্ট ৩০ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে সরকারকে একটি সার্কুলার জারি করতে নির্দেশ দিয়েছে।

ডিএসএল এ জন্য একটি ডিজিটাল সমাধান প্রদান করতে যাচ্ছে যার মাধ্যমে ডাক্তার, রোগী এবং ওষুধ বিক্রেতাগণ সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিতে সমাধান পাবেন। মূলত বাংলাদেশের দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী রোগীগণ ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী বিভিন্ন ফার্মাসী থেকে ওষুধ ক্রয় করে। ওষুধ বিক্রেতাগণ অনেক ডক্টরস প্রেসক্রিপশন সঠিকভাবে পড়তে সক্ষম হয় না। এ জন্য হাইকোর্ট ডাক্তাদের ব্লক অক্ষরে বা সফটওয়্যার সিস্টেমে প্রেসক্রিপশন প্রিন্ট আউট দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

এর সমাধানের জন্য তৈরি হয়েছে ই-কিউর ই-প্রেসক্রিপশন যা এক জায়গায় বসে সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিতে প্রেসক্রিপশন ও পরামর্শ প্রদান করবে। এর সুবিধাগুলো হচ্ছে:
* প্রেসক্রিপশন দ্রুত মুদ্রণ
* ইমেইল/ভাইবার/ইমো/ফেসবুক/মেসেঞ্জার/প্রেসক্রিপশন স্থানান্তর
* রোগীদের প্রোফাইল
* চিকিৎসদের প্রেসক্রিপশন প্রোফাইল
* রোগীদের মেডিকেল ইতিহাস
* চিকিৎসা পরামর্শ এবং অনুসরণ
* প্রেসক্রিপশন দ্রুত ইমেজ

* এস এম এস নোটিফিকেশণ
* নাম বা আইডি দ্বারা অনুসন্ধান
* অনলাইন অ্যাপয়েন্টমেন্ট
* বিল পরিশোধ পদ্ধতি
* যেকোনো স্থান থেকে সহজে প্রবেশাধিকার
* ডাটাবেস এবং ডিজিটাইজড সিস্টেম

ই-কিউর ই-প্রেসক্রিপশন
ড্যাফোডিল সফটওয়্যার একটি আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিবে যার মাধ্যমে যেকোন ডাক্তার ৫০০ টির অধিক প্রেসক্রিপশন করতে পারবেন এবং প্রেসক্রিপশন ইমেজটি ভাইবার/ইমো বা মেসেঞ্জার এর মাধ্যমে রোগীকে দিতে পারবেন। ভবিষ্যত পরিকল্পনা আছে যে বিনামূল্যের সার্ভিসটির পর কিভাবে খুবই কম খরচে ডাক্তার এবং রোগীদের এই সেবা দেওয়া যায় । এই পরিকল্পনায় আরো রয়েছে রোগীর কার্ড টি বিনা খরচে দেয়া যাতে করে সহজেই ডাক্তাদের জন্য ডাটা প্রবেশ ছাড়াই প্রেসক্রিপশন দ্রুত এবং সহজতর করতে পারেন ।

এটি একটি অনলাইন সফটওয়্যার এবং অ্যাপস হওয়ায় ডাক্তাররা যেকোনো স্থান থেকেই ট্যাবলেট পিসি/ডেস্কটপ/নোটপ্যাড/ল্যাপটপ ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমে প্রেসক্রিপশন করতে পারবেন।

১৬ জানুয়ারি, রিপোটার্স ইউনিটি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিস্তারিত তুলে ধরেন উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান ড্যাফোডিল সফটওয়্যার লি. এর প্রধান রাশেদ করিম। বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এলাইড হেলথ সায়েন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আহমেদ ইসমাইল মোস্তফা, ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লি: এর মহাব্যবস্থাপক জাফর এ. পাটোয়ারী, ড. জাহিদুর রশিদ সুমন, ড. এম ইসলাম এবং প্রধান চ্যানেল এবং পার্টনার্স উন্নয়ন বিভাগের প্রধান রফিকুল আলম রুবেল।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক