ঘোড়াশাল পাওয়ার প্ল্যান্টের উন্নয়নে জিই

জিই (এনওয়াইএসই: জিই) গ্যাস টারবাইন সরবাহের জন্য চীনা এনার্জি ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ গুএনংডং পাওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং কো. লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এই চুক্তির ফলে নরসিংদী জেলায় বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) ঘোড়াশাল পাওয়ার প্ল্যান্টের ইউনিট-৪ কে পূনঃক্ষমতায়ন করা হবে। ২০১৮ সালের মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের প্রায় ১২ গিগাওয়াট জেনারেশন সম্প্রসারণ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ঘোড়াশাল পাওয়ার প্ল্যান্টের পূনঃক্ষমতায়ন একটি মাইলফলক। এর ফলাফল স্বরুপ ২০০ মেগাওয়াট ‘ক্লিন এনার্জি’ বা দূষণমূক্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে এবং পাওয়ার প্ল্যান্টের কার্যকারিতা ২০% বৃদ্ধি পাবে।

বাংলাদেশ দ্রুত পরিবর্তনের শিখরে দাঁড়িয়ে আছে এবং শিল্পায়নের মূখ্য চালিকা শক্তি বিদ্যুৎ। বাংলাদেশের অন্যতম পাওয়ার হাব ঘোড়াশাল পাওয়ার স্টেশনকে পূনঃক্ষমতায়ন করতে পারলে দেশের বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে এক ধাপ এগিয়ে যাবে। সামগ্রিকভাবে ঘোড়াশালের ইউনিট-৩ এর প্রায় সমকক্ষ ইউনিট-৪ পূনঃক্ষমতায়নের ফলে দেশের জাতীয় গ্রিডে ৪০০ মেগাওয়াটেরও বেশি ‘ক্লিন এনার্জি’ বা দূষণমূক্ত বিদ্যুৎ যোগ হবে।

এই প্রজেক্টের অংশ হিসেবে, ঘোড়াশালে ইউনিট-৪ এর বিদ্যমান গ্যাস ফায়ার্ড বয়লারের স্থলে অ্যাডভান্সড গ্যাস পাথ (এজিপি) প্রযুক্তিসম্পন্ন জিই-এর উন্নত ৯এফ.০৩ এজিপি গ্যাস টারবাইন প্রতিস্থাপিত হবে। এতে থাকছে ইন্সটলেশনের জন্য অ্যাডভাইজরি সার্ভিস, পারফরমেন্স টেস্টিং এবং বিক্রয়োত্তর সেবা থাকাকালীন দু’বছরের অপারেশনাল স্পেয়ারস। এই পূনঃক্ষমতায়ন পাওয়ার প্ল্যান্টের মোট মেয়াদের সাথে আরও ২৫ যোগ করবে, এর দক্ষতা ৩১% থেকে ৫৩% বৃদ্ধি করবে এবং সর্বমোট উৎপাদন ক্ষমতা ১৭০ মেগাওয়াট থেকে বৃদ্ধি করে ৪০৯ মেগাওয়াটে উন্নীত করবে।

জিই সাউথ এশিয়ার গ্যাস পাওয়ার সিস্টেম এর সিইও দীপেশ নন্দা বলেন, ‘বাংলাদেশে পাওয়ার সেক্টরের যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে এবং আমরা সেই সম্ভাবনায় আশাবাদি। বিশ্বের বৃহত্তম গ্যাস টারবাইন সরবরাহকারী হিসেবে আমাদের পণ্যসমূহ বিশ্বের সবচেয়ে কার্যকরি পাওয়ার প্ল্যান্টগুলোতে অবস্থান নিতে সক্ষম হয়েছে। আমাদের প্রযুক্তি ও সমাধানের এক ব্যাপক পোর্টফোলিওর সাহায্যে বাংলাদেশের মানুষের জন্য কার্যকরি বিদ্যুৎ আনার এই প্রচেষ্টাকে সহায়তা করতে আমরা সরকারের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

৬০ বছরের বেশি সময় ধরে গ্যাস টারবাইন প্রযুক্তি ও নির্মাতা হিসেবে বিদ্যুৎ উৎপাদনের অগ্রদূত জিই । বিশ্বের প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ দখল করে আছে জিই পাওয়ার বেজ ইকুইপমেন্ট। বিশ্বের ১২০টি দেশে ২৮,০০০ এর বেশি জিই-এর পাওয়ার উৎপাদনের সম্পদ এবং প্রতিনিধিত্ব করছে প্রায় ইনস্টল্ড ক্যাপাসিটির ১,৬০০,০০০ মেগাওয়াট। ৪৫ বছরের বেশি জিই বাংলাদেশের পার্টনার এবং বর্তমানে সারা দেশে ৩০টির বেশি গ্যাস টারবাইন ইনস্টল করা আছে, যার থেকে উৎপাদন হচ্ছে ১.৯ গিগাওয়াটেরও বেশি বিদ্যুৎ।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.