গ্রীন ফ্রিডম শর্ট ফিল্ম প্রতিযোগিতা

পরিবেশ সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি এবং পরিবেশ সংরক্ষণ ও উন্নয়ন কর্মকান্ডে যুবসমাজকে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) এবং জার্মানীর ফ্রেড্রিক ন্যূম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম (এফএনএফ) এর যৌথ পৃষ্ঠপোষকতায় ও ব্যবস্থাপনায় ‘গ্রীন ফ্রিডম শর্ট ফিল্ম প্রতিযোগিতা ও পরিচ্ছন্নতা উৎসব-২০১৬’ শুরু হয়েছে।

৭ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে এ উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়। ‘মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে’ বক্তব্য রাখেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. এস এম মাহাবুব-উল-হক মজুমদার, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর এ এম এম হামিদুর রহমান, রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল হক, পরিচালক (স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্স) সৈয়দ মিজানুর রহমান, পরিবেশ বিজ্ঞান ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান ড. এ বি এম কামাল পাশা এবং ফ্রেড্রিক নূম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম (এফএনএফ) এর বাংলাদেশ প্রতিনিধি ড. নাজমুল হোসেন। সংবাদ সম্মেলনে চলচ্চিত্র নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন এবং লোগো উম্মোচন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই প্রতিযোগিতার মূল উদ্দেশ্য হলো মানুষের মাঝে পরিবেশ বিষয়ক সচেতনতা তৈরি এবং পরিবেশেরে উন্নয়নমূলক কাজে তরুণদের অনুপ্রানিত করা। এ উৎসবের আওতায় মূলতঃ দু’টি ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হবে, তার একটি ‘শর্ট ফিল্ম প্রতিযোগিতা’ আর অন্যটি ‘পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা উৎসব’। সর্বোচ্চ পাঁচ সদস্যের সমন্বয়ে গঠিত বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজের শিক্ষার্থীদের যেকোনো দল এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। প্রতিযোগিতায় ও উৎসবে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হলে প্রতিটি দলকে গুগল ফরম পূরণ করার মাধ্যমে নিবন্ধন নিশ্চিত করতে হবে। গুগল ফরম ফেসবুক ইভেন্ট পেজে পাওয়া যাচ্ছে (https://www.facebook.com/diufnf/?fref=ts)।
প্রতিটি ইভেন্টে একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে সর্বোচ্চ তিনটি করে দল অংশগ্রহণ করতে পারবে। ‘শর্ট ফিল্ম প্রতিযোগিতায়’ অংশগ্রহণকারী দলগুলিকে তাদের শর্ট ফিল্মের সিনোপসিস ( Synopsis) সঙ্গে জমা দিতে হবে। রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম চলবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখ পর্যন্ত। রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর আয়োজকরা নিবন্ধিত দলগুলোর সাথে যোগাযোগ করে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে।

পরিচ্ছন্নতা উৎসব শুরু হবে আগামী ১৪ অক্টোবর ২০১৬। পরিচ্ছন্নতা উৎসবের আওতায় অংশগ্রহণকারী দলগুলিকে ধানমন্ডি লেক ও হাতির ঝিল এলাকায় পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে হবে। এ দুটি এলাকাকে বিভিন্ন দলের জন্য নির্ধারণ করে বিভিন্ন জোনে ভাগ করে দেয়া হবে। যে দল দ্রুততম সময়ের মধ্যে সুনিপুণভাবে তার নির্ধারিত জোন পরিস্কার করতে সক্ষম হবে সে দলকেই বিজ্ঞ বিচারকমন্ডলীর রায়ে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে।

শর্ট ফিল্মের ক্ষেত্রে বিশেষায়িত বিচারকদের একটি প্যানেল অংশগ্রহণকারী দলগুলোর মধ্য থেকে সিনোপসিস (Synopsis) যাচাই-বাছাই/বিচারের মাধ্যমে প্রথম দশটি দলকে নির্বাচন করবেন। নির্বাচিত দলগুলোকে নিবিঢ় প্রশিক্ষণ (Grooming session) এর জন্য ডাকা হবে এবং প্রশিক্ষণ শেষে শর্ট ফিল্ম তৈরির জন্য তাদের একটা নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ অনুদান হিসেবে দেয়া হবে। শর্ট ফিল্ম তৈরী করে জমা দেয়ার শেষ তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৬। সেরা তিনটি শর্টফিল্মকে পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হবে। পুরস্কার বিতরণী ও শর্ট ফিল্ম প্রদর্শনী অনুষ্ঠান আগামী ৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত হবে। বিজয়ীদেরকে নগদ অর্থ, সনদ ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হবে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.