গ্রাম পর্যায়ে গ্রাহকের আস্থায় জিপে

গ্রামীণফোনের ডিজিটাল ওয়ালেট প্ল্যাটফর্ম জিপে’র মাধ্যমে ২০১৮ সালে ৯০ লাখের বেশি বিল পরিশোধ হয়েছে। সুবিধাজনক উপায়ে ও সবার কাছে সহজে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে গ্রামীণফোনের এ সেবা ধারাবাহিকভাবে প্রত্যন্ত অঞ্চলেও কোটি পরিবারকে সহজে বিল পরিশোধে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।

গ্রামীণফোনের ডেপুটি সিইও ও সিএমও ইয়াসির আজমান বলেন, ‘নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশনের (বিটিআরসি) অনুমোদনক্রমে ২০০৯ সালে যাত্রা শুরু করে জিপে। বিভিন্ন ইউটিলিটি বিল পরিশোধ, ট্রেনের টিকেট কাটা এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট কিংবা জিপি আউটলেট থেকে ওয়ালেট রিফিল করার ক্ষেত্রে জিপে দিয়ে আসছে নাগরিকদের জন্য সুবিধাজনক ও সবচেয়ে সহজ ডিজিটাল সেবা। দেশজুড়ে ২৮টি ইউলিটি প্রতিষ্ঠানের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে জিপে সরকার এবং ইউলিটি প্রতিষ্ঠানগুলোর বিল সংক্রান্ত প্রক্রিয়াতে বিশেষ সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। এ প্রেক্ষিতে, বিল পরিশোধে জিপের মাধ্যমে ২০১৮ সালে নিরাপদ, সুরক্ষিতভাবে প্রায় ১০৫০ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। উপকৃত হয়েছে  প্রায় কোটি পরিবার।

এ সেবা পেতে গ্রাহকরা তাদের নিকটস্থ মোবিক্যাশ রিটেইল আউটলেট কিংবা নির্দিষ্ট জিপে পার্টনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে জিপি ওয়ালেটে টাকা ঢোকাতে পারেন। সকল ভিসা ও মাস্টারকার্ডের ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড, ডিবিবিএল রকেট মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট, এবি ব্যাংক কোর ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট অথবা ইসলামী ব্যাংক এমক্যাশ অ্যাকাউন্ট অথবা ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর মাধ্যমে এটা করা যাবে।

এছাড়াও, জিপে গ্রাহকরা যেকোনো গ্রামীণফোন সেন্টার থেকে ওয়ালেট রিফিল করতে পারবেন।

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/২৪এম/১৯