গ্রামীণফোন ছয় মাসে রাজস্ব আয় করেছে ৫৫৬০ কোটি টাকা

গ্রামীণফোন লিঃ ২০১৬ সালের প্রথম ছয় মাসে রাজস্ব আয় করেছে ৫৫৬০ কোটি টাকা, যা ২০১৫ এর একই সময়ের তুলনায় শতকরা ৮.১ ভাগ বেশি। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় নতুন গ্রাহক ও প্রদত্ব সেবা থেকে প্রাপ্ত রাজস্ব বেড়েছে ১০.৯% ভাগ যাতে ডাটা থেকে আয়কৃত রাজস্বের বড় অবদান আছে। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ডাটা রাজস্ব বেড়েছে ৬৪.৬% এবং ডাটার ব্যবহারও বেড়েছে ১৮৬.৪%। এই সময় ভয়েস থেকে অর্জিত রাজস্ব বেড়েছে ৪.৮% প্রধানতঃ ব্যবহারের সময় বৃদ্ধি পাওয়ায়। ২০১৬ এর ২য় প্রান্তিকে ৬.৬% প্রবৃদ্ধি হয়ে রাজস্ব হয়েছে ২৮১০ কোটি টাকা।
২০১৬ এর প্রথম অর্ধে গ্রামীণফোন ২ লক্ষ নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করে ফলে মোট গ্রাহক সংখ্যা দাড়িয়েছে ৫ কোটি ৬৯ লক্ষ (বিটিআরসি এর সংগা অনুযায়ী)। গত বছরের তুলনায় এটি ৭.১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি এবং এতে সিম মার্কেট শেয়ার হয়েছে ৪৩.৩% (মে ২০১৬)। ইন্টারনেট গ্রাহক যোগ হয়েছে ৬১ লক্ষ ফলে মোট ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা দাড়িয়েছে ২ কোটি ১৮ লক্ষ।
গ্রামীণফোনের সিইও রাজীব শেঠি বলেন, “গ্রামীণফোন অত্যন্ত সফলভাবে ২০১৬ এর প্রথম অর্ধ পার করেছে। এসময় ডাটা গ্রাহক এবং এর ব্যবহার দুটোই বেড়েছে। আমরা ১০,০০০ ৩জি বিটিএস স্থাপন শেষ করেছি এবং এর ফলে দেশের ৯০ % মানুষ ৩জির আওতায় এসেছে। ” তিনি আরো বলেন,”আমাদের ভয়েস থেকে অর্জিত রাজস্বও এবং মিনিট ব্যবহার বাড়ছে। যা আমাদের আগামীতে সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখতে সাহায্য করবে। ”
আয়কর প্রদানের পর ২০১৫ এর প্রথমার্ধের শতকরা ২০.৪ ভাগ মার্জিন সহ ১০৫০ কোটি টাকা মুনাফার তুলনায় ২০১৬ এর একই সময়ে নিট মুনাফা হয়েছে শতকরা ১৯.২ ভাগ মার্জিন সহ ১০৭০ কোটি টাকা। অধিকতর রাজস্ব এবং দক্ষ পরিচলণ ব্যয়ের ফলে EBITDA (অন্যান্য আইটেমের আগে) ৫৪.৮% মার্জিন সহ ৩০৬০ কোটি টাকা। এই সময় শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস)ছিল ৭.৯২ টাকা।
গ্রামীণফোনের সিএফও দিলীপ পাল বলেন, “২০১৬ এর প্রথম অর্ধে আমরা দুই অংকের গ্রাহক ও ট্রাফিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছি। আমাদের সহজ গ্রাহক কেন্দ্রিক পন্য এবং ৩জি সম্প্রসারণে অব্যাহত বিনিয়োগই এই প্রবৃদ্ধির চালিকা শক্তি। দৃঢ় রাজস্ব প্রবৃদ্ধি এবং দক্ষ ব্যয় EBITDA মার্জিন এর উন্নয়ন ঘটিয়েছে। উচ্চতর অবচয় এবং এমোর্টাইজেশন স্বত্বেও শেয়ার প্রতি আয় স্থিতিশীল আছে।” তিনি আরো বলেন, “আমি আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে গ্রামীণফোনের বোর্ড অফ ডিরেক্টর পরিশোধিত মূলধনের ৮.৫% অন্তবর্তী লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে।”
এ বছরের প্রথমার্ধে ৩জি বিস্তার, ২জি বিস্তার ও ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে গ্রামীণফোন ১৩৬০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে। এদিকে দেশের বৃহত্তম করদাতা গ্রামীণফোন একই সময়ে কর, ভ্যাট, শুল্ক এবং লাইসেন্স ফি আকারে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ৩৩১০ কোটি টাকা জমা দিয়েছে, যা প্রতিষ্ঠানের মোট রাজস্ব আয়ের ৫৯.৫ শতাংশ।
গ্রামীণফোন লিঃ এর বোর্ড অফ ডিরেক্টরস ২০১৬ এর ৩০ জুন এ সমাপ্ত অর্ধবছরের অন্তবর্তী নিট মুনাফা এবং ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত সংরক্ষিত আয়ের উপর ভিত্তি করে পরিশোধিত মূলধন এর শতকরা ৮৫ ভাগ (প্রতিটি ১০ টাকা মূল্যের শেয়ার এর বিপরীতে ৮.৫০ টাকা) অন্তবর্তী নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এই লভ্যাংশ ২০১৬ এর ৩০ জুন এ সমাপ্ত অর্ধবছরের কর পরবর্তী নিট মুনাফার শতকরা ১০৭ ভাগ। এই লভ্যাংশ রেকর্ড ডেট ৮ আগস্ট ২০১৬ এ যারা শেয়ারহোল্ডার থাকবেন তাদের মধ্যে নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের বেধে দেয়া সময়ানুযায়ী বিতরণ করা হবে।

-সিনিউজভয়েস/ডেক্স 

Please Share This Post.