গুগলে সার্চ করুন বাংলায় কথা বলে

প্রতিদিনই প্রচুর সংখ্যক দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষ ইন্টারনেটে যুক্ত হচ্ছেন। ইন্টারনেটকে সবার ব্যবহারের উপযোগী করে তুলতে ভাষাগত প্রতিবন্ধকতা কমানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আর তাই গুগল তার ভয়েস সার্চ সেবায় যুক্ত করেছে নতুন ৩০টি ভাষা, যার মধ্যে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের আটটি ভাষা। ভাষাগুলো হচ্ছে বাংলা, গুজরাটি, উর্দু, কন্নড়, মালায়লাম, মারাঠি, তামিল ও তেলেগু। ফলে এসব ভাষা ব্যবহারকারী মানুষেরা এখন থেকে কথা বলার মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েডের জিবোর্ডের পাশাপাশি গুগল অ্যাপে সার্চ করতে পারবেন।

কথার মাধ্যমে সার্চ করুন
আপনি যখন রাস্তাঘাটে হাঁটাচলার মধ্যে থাকবেন তখন মোবাইলফোনে টাইপ করাটা খুবই ঝামেলাপূণ ও কঠিন কাজ হয়ে দাড়ায়। কিন্তু আপনি যদি উপরোক্ত আটটি ভাষার যেকোনো একটি জানেন তাহলে আপনার আর কোনো চিন্তা নেই। কারণ এখন থেকে ওই আটটি ভাষায় কথা বলেই অত্যন্ত সহজে ও দ্রুতগতিতে যোগাযোগ করা যাবে। অর্থাৎ কোনো কিছু সার্চ করতে আপনাকে আর কিবোর্ডে টাইপ করতে হবে না।

উদাহরণ দিয়েই বলা যাক। ধরুন, আপনি চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছেন। পথিমধ্যে কোথাও আপনি খাবার খেতে চান। এমতাবস্থায় আপনি শুধু মুখে মোবাইল ফোনে আপনার ভাষায় ‘তন্দুরি আছে এমন রেস্টুরেন্ট চাই’ কথাটি বলবেন। আর সঙ্গে সঙ্গেই গুগল অ্যাপ আপনাকে সার্চ রেজাল্ট দেখাবে। অর্থাৎ আপনি যে ধরনের রেস্টেুরেন্টে খেতে চান সেই রকম রেস্টুরেন্টগুলো কাছকাছি কোনো কোনো জায়গায় আছে তা আপনি জানতে পারবেন। নতুনভাবে গুগলে যুক্ত হওয়া দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের এই আটটি ভাষায় মুখের কথায় কোনো কিছু সার্চ করতে হলে আপনাকে অবশ্য প্রথমে মোবাইল ফোনে গুগল অ্যাপ চালু করতে হবে। এর পরে আপনাকে ভয়েস সেটিংস ম্যানুতে গিয়ে (ওপরে বাম দিকে) কোন ভাষায় কথা বলবেন সেটি নির্বাচন করতে হবে। এবারে কথা বলুন, দেখে নিন যে আপনি যা চেয়েছেন তা মোবাইল ফোনের পর্দায় ভেসে উঠেছে।

জিবোর্ডে সার্চ করুন কথা বলে
কথার মাধ্যমে নির্দেশনা দিয়ে কোনো মেসেজ তৈরি করা একেবারে সহজ কোনো কাজ নয় বটে, তবে টাইপ করে মেসেজ তৈরি করার চেয়ে তা তিন গুণ বেশি দ্রুততর হয়ে থাকে। সে জন্য আপনার মোবাইল ফোন থেকে জিবোর্ডে ভয়েস টাইপিংয়ের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের মেসেজ তৈরি বা কোনো ই-মেইলের উত্তর পাঠানোর সুবিধা নিয়ে এসেছে গুগল। উদাহরণস্বরুপ, আপনি বাসায় ফিরছেন। কিন্তু রাস্তায় ট্রাফিক জ্যামের মধ্যে আটকে পড়েছেন। এ অবস্থায় আপনি পরিবারকে একটি মেসেজ বা বার্তা দিতে চান। তখন আপনি শুধু আপনার অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে জিবোর্ড অ্যাপটি চালু করে কথা বললেই হবে। আপনি হয়তো বললেন, রাস্তায় জ্যামে আছি। ডিনারে যোগ দিতে কিছুটা দেরি হতে পারে। ব্যস, আপনার পরিবার তৎক্ষণাৎ জেনে যাবে আপনি কি কথা বলেছেন। কথা বলে করে কাজ করতে চাইলে আপনাকে প্রথমেই গুগল প্লে স্টোর থেকে আপনার অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে জিবোর্ড অ্যাপটি ইনস্টল করতে হবে। এর পরে আপনার ভাষা অর্থাৎ কোন ভাষায় কথা বলবেন সেটি বেছে নিতে হবে (এজন্য সাজেশন স্ট্রিপে জি চাপুন এবং সেটিংস ঠিক করে নিন)। এবারে মাইক্রোফোন চালু করে কথা বললেই আপনার কাজ হয়ে যাবে।

মেশিন লার্নিং প্রক্রিয়ায় নির্ভুলভাবে উচ্চারিত ভাষার শব্দ ও আওয়াজ অনুধাবন
নতুন সেবাটি চালু করার জন্য গুগলের পক্ষ থেকে দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের আলোচ্য আটটি ভাষায় কথা বলা মানুষজনের সঙ্গে কাজ করা হয়েছে। এ সময় স্থানীয় ভাষাভাষী মানুষের স্পিচ স্যাম্পল বা কথার নমুনা সংগ্রহের পাশাপাশি সাধারণ কিছু ফ্রেইজ বা বাক্য-বাক্যাংশ, শব্দ ব্যবহারের প্রণালী পড়তে বলা হয়েছে। এই প্রক্রিয়ায় মেশিন লার্নিং মডেলকে প্রশিক্ষিত/তৈরি করা হয়েছে। অর্থাৎ যন্ত্রকেই আলোচ্য আটটি ভাষায় উচ্চারিত শব্দ ও আওয়াজ নির্ভুলভাবে ধারণ বা অনুধাবন এবং আদান-প্রদানের সুবিধাসহ সাজিয়ে তোলা হয়েছে। যত বেশি মানুষ সম্পৃক্ত হবে এবং সময়ও যত এগিয়ে যাবে তার সঙ্গে সঙ্গে এই আটটি ভাষায় ভয়েস ইনপুটের মাধ্যমে মেসেজ আদান-প্রদানের সুবিধা তত ভালো ও জোরদার হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

নতুন যুক্ত হওয়া দক্ষিণ এশিয়ার এই আটটি ভাষা গুগলের ক্লাউড স্পিচ এপিআইতেও পাওয়া যাবে এবং খুব শিগগির গুগলের ট্র্যান্সলেট অ্যাপসহ অন্যান্য অ্যাপস এবং পণ্যের সঙ্গেও এসব ভাষায় কথা বলার অ্যাপটি মিলবে। এই আটটি ভাষাসহ বিশ্বব্যাপী মোট ১১৯টি ভাষায় অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের জিবোর্ড এবং গুগল অ্যাপে ভয়েস সার্চ করার সেবা বিস্তৃত করেছে গুগল।


– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.