কোভিড-১৯ চলাকালীন ৬০ হাজারের বেশি বাংলাদেশি ডিজিটাল দক্ষতা অর্জন করেছে

সিনিউজ ডেস্ক : সম্প্রতি মাইক্রোসফট কর্পোরেশন ঘোষণা করেছে যে, তারা ২৪৯টি দেশ ও অঞ্চলের ৩ কোটিরও বেশি মানুষকে ডিজিটাল দক্ষতা অর্জনে সহায়তা করেছে, যার মধ্যে ৬০ হাজারের বেশি বাংলাদেশি রয়েছেন। যা মাইক্রোসফটের গত জুনে আড়াই কোটির প্রাথমিক লক্ষ্যকে ছাড়িয়ে গিয়েছে। এছাড়াও, মাইক্রোসফট কর্পোরেশন চলতি বছর বিশ্বের আড়াই লাখ প্রতিষ্ঠানকে দক্ষতা-ভিত্তিক নিয়োগে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছে।

কর্মহীন কারখানা শ্রমিক থেকে শুরু করে রিটেইল অ্যাসোসিয়েট ও ট্রাক চালক পর্যন্ত লক্ষাধিক মানুষ গ্রাহক সেবা প্রকল্প ব্যবস্থাপনা এবং ডেটা অ্যানালাইসিসের মতো চাহিদা থাকা পদের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে করোনাকালে গিটহাব, লিংকডইন এবং মাইক্রোসফটের অনলাইন লার্নিং কোর্সের দিক ঝুঁকেছেন। অফিশিয়াল মাইক্রোসফট ব্লগের এই ঘোষণায় মানুষকে সহায়তা করার জন্য প্রতিষ্ঠানটির প্রচেষ্টার কথা বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করা হয়েছে, যেখানে বলা হয়েছে চলতি বছর লিংকডইন লার্নিং এবং মাইক্রোসফট লার্নে সর্বাধিক চাহিদা থাকা ১০টি চাকরি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিনামূল্যে কোর্স করার এবং স্বল্পমূল্যে সার্টিফিকেট অর্জনের সুযোগ দেয়া হয়েছে। এই উদ্যোগের পরবর্তী পর্যায়ে দক্ষতা ভিত্তিক অর্থনীতির নতুন ভিত তৈরির লক্ষ্যে নতুন টুল ও প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে দক্ষ চাকরিপ্রার্থীদের সাথে নিয়োগকর্তাদের সংযুক্ত করা হবে।

মাইক্রোসফট বাংলাদেশ, ভুটান, ব্রুনাই ও নেপালের কান্ট্রি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আফিফ মোহামেদ আলী বলেন, ‘বৈশ্বিক মহামারি সবকিছু বদলে দিয়েছে, এবং বৈশ্বিক মহামারি পরবর্তী বিশ্ব আমাদের চিরচেনা বিশ্বের চেয়ে অনেক বেশি আলাদা হবে। এছাড়া, আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের (ফোরআইআর) দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছি, যা অভাবনীয় পরিবর্তন আনবে এবং চাকরির বাজারসহ সকল শিল্পকে উল্লেখযোগ্যভাবে প্রভাবিত করবে। বৈশ্বিক মহামারি পরবর্তী বিশ্বে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠতে সহায়তা করবে এমন জ্ঞানার্জন ও দক্ষতা বৃদ্ধি প্রত্যেক মানুষের জন্য অত্যাবশ্যক হয়ে উঠেছে। তাই, আমরা অন্তর্ভুক্তিমূলক দক্ষতা-ভিত্তিক শ্রমবাজার সৃষ্টি, আরও বেশি বিকল্প ও নমনীয়তা তৈরি এবং অধিক সংখ্যক মানুষকে নতুন কাজের সুযোগের সাথে সংযুক্ত করতে শেখার সুযোগ তৈরিতে আমাদের প্রচেষ্টাকে দ্বিগুণ করতে লিংকডইনের সাথে জোটবদ্ধ হয়েছি।’

লিংকডইন এই বছর বিশ্বের আড়াই লাখ প্রতিষ্ঠানকে নতুন এবং বিদ্যমান নিয়োগ পণ্যের মাধ্যমে দক্ষতা-ভিত্তিক নিয়োগে সহায়তা করার পরিকল্পনা করেছে। প্রতিষ্ঠানটি চাকরি প্রত্যাশীদের তাদের দক্ষতা প্রদর্শনের সুযোগ করে দিবে এবং নিয়োগকর্তাদের লিংকডইন স্কিলস পাথ, লিংকডইন প্রোফাইল ফিচার এবং লিংকডইন স্কিলস গ্রাফ সহ দক্ষ প্রার্থীদের সাথে সংযুক্ত হওয়ার জন্য নতুন টুল সরবরাহ করবে।

প্রতিষ্ঠানে দক্ষতার ভিত্তিতে নিয়োগ দিতে সাহায্য করার নতুন উপায় লিংকডইন স্কিলস পাথ। স্কিলস পাথে রয়েছে স্কিল অ্যাসেসমেন্টসহ লিংকডইন লার্নিং কোর্স, যা নিয়োগকর্তাদের আরও নিখুঁতভাবে দক্ষতার ভিত্তিতে প্রার্থী মূল্যায়নের সুযোগ করে দেয়। লিংকডইন পরীক্ষামূলকভাবে ব্ল্যাকরক, গ্যাপ আইএনসি এবং টাস্কর‍্যাবিট সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে স্কিলস পাথ এনেছে, যারা বিভিন্ন অভিজ্ঞতাসম্পন্ন প্রার্থী নিয়োগ দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

নতুন অভিব্যক্তিপূর্ণ এবং পারসনালাইজড (ব্যক্তিকৃত) লিংকডইন প্রোফাইল ফিচার মানুষকে আরও বেশি নিখুঁত ও আকর্ষনীয়ভাবে নিজেকে উপস্থাপন করতে এবং নিজের ক্যারিয়ার ও লক্ষ্য শেয়ার করতে সাহায্য করবে। এর মধ্যে রয়েছে ভিডিও কভার স্টোরি, যা চাকরি প্রার্থীদের নিয়োগকারীদের কাছে নিজের সফট স্কিল তুলে ধরতে সাহায্য করবে।

লিংকডইন স্কিলস গ্রাফের অ্যাক্সেস ব্যক্তি, নিয়োগকর্তা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং সরকারি সংস্থার কর্মীদের পরিকল্পনা, নিয়োগ এবং উন্নয়ন কর্মসূচি আরও উন্নত করতে একটি সাধারণ দক্ষতার ভাষা তৈরিতে সহায়তা করবে।

ক্যারিয়ার কোচসহ সুদূরপ্রসারী ডিজিটাল দক্ষতার সুযোগ প্রচারে লিংকডইনকে সহায়তা করতে কাজ করছে মাইক্রোসফট। লিংকডইন চালিত মাইক্রোসফট টিমস ফর এডুকেশন অ্যাপটি উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রের শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ারের পথ সুগম করতে ব্যক্তিগত নির্দেশিকা সরবরাহ করবে। ক্যারিয়ার কোচ এআই-ভিত্তিক দক্ষতা শনাক্তকারী এবং লিংকডইন ইন্টিগ্রেশন ব্যবহার করে শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য, আগ্রহ এবং দক্ষতা সম্পর্কে জানতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সমন্বিত ক্যারিয়ার সমাধান প্রদান করে। এটি চাকরি বাজারের ট্রেন্ডের সাথে একজন শিক্ষার্থীর বিস্তারিত প্রোফাইলের সম্মিলন ঘটায় এবং তাদেরকে বিশেষজ্ঞ এবং সমমনা ব্যক্তিদের সাথে এক জায়গায় যুক্ত করার পাশাপাশি জীবনমুখী দক্ষতা বিকাশে সাহায্য করে।

লিংকডইনের এশিয়া প্যাসিফিক এবং চীনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ভাইস-প্রেসিডেন্ট অলিভিয়ার লেগ্র্যান্ড বলেন, ‘আমাদের কর্ম জগতে দক্ষতা-ভিত্তিক নিয়োগ দিনকে দিন আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। আমরা দেখেছি সারাবিশ্বের মানুষ জ্ঞান অর্জন ও দক্ষতা বিকাশে আগ্রহ প্রকাশ করছে এবং প্রতিষ্ঠানগুলোও প্রচলিত যোগ্যতার মাপকাঠিতে না মেপে দক্ষতার ভিত্তিতে নিয়োগ দিচ্ছে। লিংকডইন, মাইক্রোসফটের সাথে যৌথভাবে দক্ষতা-ভিত্তিক অর্থনীতি গড়ে তুলতে সকলকে সহায়তা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। চলতি বছর আমরা চাকরিপ্রার্থীদের নতুন দক্ষতা অর্জনের জন্য সঠিক সংস্থান দিয়ে সাহায্য করবো এবং তাদের বিভিন্ন সুযোগের সাথে সংযুক্ত করতে আমাদের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাব; পাশাপাশি ২৫০,০০০ প্রতিষ্ঠানকে দক্ষতা-ভিত্তিক নিয়োগে সহায়তা করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করব।’

এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে, বিশ্বব্যাপী প্রায় ৬০ লাখ শিক্ষার্থীকে কোচিং, পরামর্শ এবং নেটওয়ার্কিংয়ের মাধ্যমে সম্পূর্ণরূপে সহায়তা করতে মাইক্রোসফট তার অলাভজনক অংশীদারদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করেছে। এ থেকে প্রাপ্ত জ্ঞান মাইক্রোসফট আরও বিস্তৃতভাবে কাজে লাগাবে। মাইক্রোসফট ‘ক্যারিয়ার কানেক্টর’ নামক একটি নতুন অনলাইন সেবার ঘোষণা দিতে যাচ্ছে, যা বিশ্বের ৫০ হাজার চাকরিপ্রার্থীকে পরবর্তী তিন বছরে একটি টেক-এনাবলড চাকরির সুযোগ প্রদান করবে। মাইক্রোসফটের অলাভজনক এবং লার্নিং অংশীদারদের মাধ্যমে যারা দক্ষতা অর্জন করেছে, এটি তাদের ওপর বিশেষ নজর রাখবে এবং প্রযুক্তিখাতে নারী ও সংখ্যালঘুদের অংশগ্রহণের প্রতি জোর দিবে।

Please Share This Post.