ওয়ালটন ল্যাপটপ-ডেস্কটপ ও এক্সেসরিজে ১০০% পর্যন্ত ক্যাশব্যাক

নতুন বছর উপলক্ষ্যে ল্যাপটপ, কম্পিউটার ও এক্সেসরিজে আকর্ষণীয় ক্যাশব্যাকের ঘোষণা দিলো বাংলাদেশি সুপারব্র্যান্ড ওয়ালটন। এখন ওয়ালটনের সব মডেলের ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, অল-ইন-ওয়ান পিসি এবং অন্যান্য আইটি পণ্য ও এক্সেসরিজ ক্রয়ে থাকছে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাক। ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ ২০২১ পর্যন্ত দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা এবং ডিলার পয়েন্টে এসব সুবিধা পাচ্ছেন গ্রাহকরা। নগদ মূল্য ও কিস্তি সুবিধায় ওয়ালটন কম্পিউটার পণ্য কেনার ক্ষেত্রেও ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাক মিলছে।
বুধবার (৬ জানুয়ারি ২০২১) রাজধানীতে ওয়ালটন করপোরেট অফিসে আয়োজিত এক ডিক্লারেশন প্রোগ্রামে এসব তথ্য জানানো হয়। অনলাইনের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে যোগ দেন ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এসএম রেজাউল আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক এবং আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কার বিজয়ী সাদাত রহমান।
অন্যদের মধ্যে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, ইভা রিজওয়ানা নিলু, এমদাদুল হক সরকার ও হুমায়ূন কবীর, ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর প্রকৌশলী লিয়াকত আলী, ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক এস এম জাহিদ হাসান, উদয় হাকিম, ফিরোজ আলম ও আমিন খান প্রমুখ।
এদিকে ওয়ালটন ডিজিটাল ডিভাইস কেনায় ক্রেডিট কার্ডে বিনা ইন্টারেস্টে ইএমআই সুবিধা দিচ্ছে দেশের ৩৭৫টি ওয়ালটন প্লাজা। পাশাপাশি অনলাইনের ই-প্লাজা (https://eplaza.waltonbd.com) থেকে অর্ডার করলে থাকছে ব্যাপক মূল্যছাড়। এছাড়া, শিক্ষার্থীদের জন্য ওয়ালটন ল্যাপটপ কেনায় রয়েছে বিশেষ সুবিধা। তবে ই-প্লাজা থেকে ক্রয়ের ক্ষেত্রে ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাক সুবিধা মিলবে না।
ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডিএমডি এবং কম্পিউটার বিভাগের সিইও প্রকৌশলী লিয়াকত আলী বলেন, ওয়ালটন সবসময় ক্রেতাদের চাহিদা ও প্রয়োজনীয়তা বিবেচনায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও ফিচারের সাশ্রয়ী মূল্যের ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন ও বাজারজাত করে আসছে। পাশাপাশি শিক্ষার্থী, চাকুরিজীবী, ব্যবসায়ী, মুক্ত পেশাজীবিসহ সব শ্রেণী-পেশার ক্রেতাদের নানান সুবিধা দিচ্ছে। এরই প্রেক্ষিতে ওয়ালটন ল্যাপটপ, কম্পিউটার এবং এক্সেসরিজে শতভাগ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক ঘোষণা করা হয়েছে। এরফলে সবার কাছে সহজেই ডিজিটাল ডিভাইস পৌঁছে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রেখে চলেছে ওয়ালটন।
ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে তারা বিভিন্ন কনফিগারেশনের প্রিলুড, প্যাশন, ট্যামারিন্ড, কেরোন্ডা এবং ওয়াক্সজ্যাম্বু সিরিজের ২১ মডেলের ল্যাপটপ উৎপাদন ও বাজারজাত করছে। যেগুলো পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ২৩,৫৫০ টাকা থেকে ১৬৮,৫০০ টাকায়। ওয়ালটনের আছে ৭ সিরিজের মোট ১৬ মডেলের ডেস্কটপ। যার মূল্য ২৬,৯৯০ টাকা থেকে ১২৯,৫৫০ টাকার মধ্যে। এছাড়া ওয়ালটনের রয়েছে ৩ মডেলের অল-ইন-ওয়ান ওয়ালটন কম্পিউটার। যার মূল্য ৪৬,৯৫০ থেকে ৫৫,৫০০ টাকার মধ্যে।
পাশাপাশি বিভিন্ন মডেলের সাশ্রয়ী মূল্যের মনিটর, মেমোরি কার্ড, র‌্যাম, এসএসডি ড্রাইভ, মাউস, কিবোর্ড, পেন ড্রাইভ, ইয়ারফোন, ওয়াই-ফাই রাউটার, ইউএসবি ক্যাবল, স্পিকার, পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট, ইউপিএস, ডিজিটাল রাইটিং প্যাড ইত্যাদি উৎপাদন ও বাজারজাত করছে ওয়ালটন।
মডেলভেদে ল্যাপটপে সর্বোচ্চ ২ বছর এবং ডেস্কটপে ৩ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা দিচ্ছে ওয়ালটন।

Please Share This Post.