ওয়ার্ল্ড ইউনিয়ন অব স্মল অ্যান্ড মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজ এর বাংলাদেশের দূত হলেন ড. মো. সবুর খান

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খানকে বাংলাদেশের জন্য দূত নিয়োগ করেছে দি ওয়ার্ল্ড ইউনিয়ন অব স্মল অ্যান্ড মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজ (ডব্লিউ ইউএসএমই)। বাংলাদেশের উদ্যোক্তা উন্নয়নে এবং দেশের অর্থনীতিতে অসামান্য অবদান রাখার স্বীকৃতি হিসেবে তাঁকে এই সম্মানজনক পদে অভিষিক্ত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে এখন থেকে বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা সংগঠনগুলো বৈশ্বিক ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সুযোগ পেল।
ডব্লিউ ইউএসএমই একটি আন্তর্জাতিক সংস্থা যার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হচ্ছে সারা বিশ্বে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগগুলোকে ছড়িয়ে দেওয়া, পৃষ্ঠপোষকতা করা ও নিরাপত্তা প্রদান করা। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে প্রত্যেক দেশে গতিশীল করা, টেকসই করা ও সমাজের বুকে প্রতিষ্ঠা করতে সব ধরনের অবদান রাখাই এই সংস্থার মূল উদ্দেশ্য।
ড. মো. সবুর খান ডব্লিউ ইউএসএমই-র দূত নির্বাচিত হওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশ বৈশ্বিক পরিসরে সবচেয়ে বড় এসএমই প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে যুক্ত হতে পারল। এর ফলে বাংলাদেশের সামনে অনেক সুযোগ ও সম্ভাবনার দুয়ারও উন্মোচিত হলো। বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা এখন থেকে তাদের উদ্ভাবিত পণ্য সারা বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে পারবে। পাশাপাশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের বৈশ্বিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে যুক্ত হওয়া, নিজের সফলতাকে তুলে ধরা এবং নিজেদেরকে উন্নত করার সুযোগ তৈরি করতে পারবে।
ড. মো. সবুর খান বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থায় বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। বর্তমানে তিনি ওয়ার্ল্ড বিজনেস অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টমেন্ট ফোরাম (ডব্লিউবিএএফ)-এর বাংলাদেশের হাইকমিশনার, ডব্লিউবিএএফ-এর গ্লোবাল বোর্ড মেম্বার, অ্যাসোসিয়েশন অব ইউনিভার্সিটিস অব এশিয়া অ্যান্ড দি প্যাসিফিক (এইউএপি)-এর নির্বাচিত ভাইস প্রেসিডেন্ট, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রেসিডেন্ট ফোরাম (এইউপিএফ)-এর স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য, ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স (উইটসার)-এর পরিচালক, উইটসার গ্লোবাল ট্রেড কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া তিনি ২০১৩ সালে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

Please Share This Post.