এশিয়া-প্যাসিফিক ইনফরমেশন সুপার হাইওয়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশ

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক গতকাল বিকেলে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে ইউএন-এসকাপ ও ইন্টারনেট সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত উচ্চ পর্যায়ের এক ফোরামে Internet of Opportunity in the Asia-Pacific শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে তিনি সার্বজনীন ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিত করতে ইন্টারনেট-সুবিধা বঞ্চিত জনগণকে ইন্টারনেট-সুবিধার আওতায় আনার ওপর জোর দেন। তিনি বলেন যে, এসডিজি’র উদ্দেশ্যপূরণে সুস্বাস্থ্য, গুণগত শিক্ষা, উদ্ভাবন, স্মার্ট সিটি’র মত লক্ষ্যসমূহ অর্জনে অন্তর্ভূক্তিমূলক ইন্টারনেট (ইনক্লুসিভ-ইন্টারেনট) খুবই গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ। তাই ইউএন-এসকাপের সদস্যভূক্ত দেশগুলোকে এশিয়ান-প্যাাসিফিক ইনফরমেশন সুপারহাইওয়েতে যুক্ত করা অধিক যুক্তিযুক্ত ও ফলদায়ক হবে। পরে ফোরামে বাংলাদেশের এ প্রস্তাব ইউএন-এসকাপ সদস্যভূক্ত দেশগুলো সমর্থন করেন এবং বাংলাদেশকে এশিয়া-প্যাসিফিক ইনফরমেশন সুপার হাইওয়ে ওয়ার্কিং গ্রুপের চেয়ারম্যন নির্বাচিত করা হয়। আগামী এক বছরের জন্য বাংলাদেশ এ পদে কাজ করবে।

এ সময় প্রতিমন্ত্রীর সাথে আরো উপস্থিত ছিলেন ইউএন এসকাপে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি এবং ব্যাংককে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সাঈদা মুনা তাসনিম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার সাহা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক, প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব আব্দুল বারি।

উল্লেখ্য যে, এশিয়া-প্যাসিফিক ইনফরমেশন সুপার হাইওয়ের মাধ্যমে এশিয়া ও প্রশান্তমহাসাগরিয় অঞ্চলের দেশগুলোকে ট্রান্স এশিয়ান রেললাইন বরাবর ফাইবার অপটিক কেবল দ্বারা সংযুক্ত করার মাধ্যমে স্বল্পমূল্যে নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সংযোগ প্রদান করা হবে।

-সিনিউজভয়েস/ডেক্স

Please Share This Post.