উপজেলা পর্যায়ে প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

বিভাগ জেলার গণ্ডি পেরিয়ে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা এবার উপজেলা পর্যায়েও ছড়িয়ে পড়লো। ২৮ মার্চ চট্টগ্রামের আনোয়ারা ও ২৯ মার্চ নীলফামারি জেলার সৈয়দপুর উপজেলায় সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ার মাধ্যমে দেশে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার সংস্কৃতি উপজেলাতেও পৌঁছে গেল।

সরকারে আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা আগামীতে আরো বেশি সংখ্যক উপজেলায় আযোজন করা হবে বলে আয়োজকসূত্রে জানা গেছে।

এ বছর পাইলট ভাবে তিনটি উপজেলায় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন স্থানীয় আয়োজকের দায়িত্ব পালন করেছে। একই সঙ্গে গত ২৮ মার্চ সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং কুমিল্লায় বাংলাদেশ আর্মি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে যথাক্রমে সিলেট ও কুমিল্লা অঞ্চলের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৪টি পর্বের প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী ও সমাপনী পর্বে উপস্থিত ছিলেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, আনোয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, নির্বাহী কর্মকর্তা গৌতম বাড়ৈ, শাবিপ্রবির উপাচার্য প্রফেসর মো. আমিনুল হক ভূইয়া, ডিন প্রফেসর মো. শহীদুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. ইলিয়াস উদ্দীন বিশ্বাস, বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর মো. সেলিম রেজা, প্রফেসর মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, কুমিল্লা সেনানিবাসের এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. রাশেদ আমিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইলিয়াস ইফতেখার রসুল, বিডিওএসএনের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান, সৈয়দপুর ক্যান্টন্টমেন্ট পাবলিক স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ বি এম শেফাউল কবীর, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু ছালেহ মো. মুসা প্রমুখ।

চারটি পর্বে প্রায় সাড়ে তিন হাজার শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে যাদের মধ্যে থেকে ২২০ জনকে জাতীয় পর্যায়ের জন্য বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য যে, দেশের হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংকে জনপ্রিয় ও তাদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ তৃতীয়বারের মতো জাতীয় হাইস্কুল আইসিটি কুইজ ও প্রোগ্রমিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। ১৬টি আঞ্চলিক ও ৩টি উপজেলা পর্যায়ের বিজয়ীরা ঢাকায় জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেবে। এর পর ধারাবাহিক নির্বাচনের মাধ্যমে ইরানের তেহরানে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশের সদস্যদের নির্বাচন করা হবে। বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) প্রতিযোগিতার বাস্তবায়ন সহযোগী হিসাবে এবং কোড মার্শাল জাজিং প্ল্যাটফর্ম হিসাবে ব্যহৃত হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ স্থানীয় আয়োজক হিসাবে সম্পৃক্ত রয়েছে।

আগামী ১৯ মার্চ নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে লোয়াখালী ও পটুয়াখালী অঞ্চলের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিযোগিতার সময়সূচি www.nhspc.org এই ওয়েবসাইট ও www.facebook.com/nhspcbd ফেসবুক পেজে পাওয়া যাবে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.