উন্নত ফিচারের হেলিও এস২ স্মার্টফোন বাজারে

এডিসন গ্রুপ এর প্রিমিয়াম ব্র্যান্ড ধারাবাহিকতা বজায় রেখে বাজারে আনলো হেলিও ব্র্যান্ডের তৃতীয় নতুন স্মার্টফোন হেলিও এস ২। সম্প্রতি ঢাকার একটি অভিজাত শপিং মলে এই স্মার্টফোনটি উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এডিসন গ্রুপে সিনিয়র ডিরেক্টর রেজোয়ানুল হক, মার্কেটিং ডিরেক্টর আশরাফুল হক, হেড অব সেলস (এডিসন ইলেকট্রনিক্স) কাজী জহির উদ্দীন এবং সিনিয়র ম্যানেজার (মার্কেটিং) জাহিদুল ইসলাম।

হেলিও এস ২ তে ব্যবহার করা হয়েছে নজরকাড়া মেটালিক ইউনিবডি।  এর ৮.১৫ মিলিমিটার বডির থিকনেসের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ২.৫ডি ওয়াটার ড্রপ গ্লাস। এটা শুধু ফোনকে দেখতে সুন্দর করবে তাই নয়, ফোনের গ্রিপ, টাচস্ক্রিন রেসপন্স সব কিছুই হয়েছে আরো আধুনিক। এর ৫.৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি (১৯২০ বাই ১০৮০) আইপিএস ডিসপ্লে হলো ইন্ডাস্ট্রি এভারেজ থেকে অনেক ওপরে। টাচস্ক্রিনের গ্লাস ডিসপ্লের বডির সঙ্গে মিশে যাওয়ার ফুল লেমিনেশন পার্টটি প্রশংসার যোগ্য। শুধু তাই নয় ফোনের গ্লাসকে মজবুত করার জন্য এতে ব্যবহার করা হয়েছে গরিলা গ্লাস থার্ড জেনারেশন।

হেলিও এস২ এর অন্যতম শক্তিশালী পার্টস হলো এর ক্যামেরা। এর রিয়ার ক্যামেরাতে ব্যাবহার করা হয়েছে সনি আইএমএক্স ২৫৮  ক্যামেরা সেন্সর। যা ১৩ মেগাপিক্সেলে এফ২.০ অ্যাপারচারে ছবি তুলতে সক্ষম। রিয়ার ক্যামেরা তে রয়েছে ১৪ টি মনোমুগ্ধকর ফিচার ও অত্যাধুনিক এলইডি ফ্ল্যাশ যার মাধ্যমে আনন্দদায়ক জিফ, মুড ফটো থেকে প্রফেশনাল কোয়ালিটি, আল্ট্রা পিক্সেল লেভেল এর ছবি তোলা সম্ভব। এই স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরাতে রয়েছে সবচাইতে বড় চমক কারণ ট্রু টোন ফ্রন্ট ফ্ল্যাশ ব্যবহার করে ৮ মেগাপিক্সেল এফ২.২ অ্যাপাচারে এ তোলা যাবে চমৎকার সব সেলফি।

হেলিও এস২ এর বেস্ট পারফরম্যান্সের জন্য ব্যাবহার করেছে ৬৪ বিট পাওয়ারফুল ১.৩ গিগাহার্জ অক্টা কোর প্রসেসর, যার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে মালি টি৭২০এমপি৩ জিপিইউ। গেমস, হাই ডিমান্ড অ্যাপস সহ সব কিছু চলবে অনেক স্মুথলি। ফোনটির লোড নেওয়ার ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য  ৩ জিবি র‌্যাম ব্যবহার করা হয়েছে।

হেলিও এস২ তে মাল্টিমিডিয়ার সকল চাহিদা পূরণ করার জন্য এতে দেওয়া হয়েছে হাই স্পিড ৩২ জিবি স্টোরেজ। এই স্মার্টফোনটিতে এক্সপান্ডেবল মেমোরি ১২৮ জিবি পর্যন্ত ব্যাবহার করা যাবে। এর অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৬.০.১ মার্সম্যালো।

ওটিজি সাপোর্ট সুবিধার এই ফোনটিতে রয়েছে লেটেস্ট জেনারেশন ওয়াই-ফাই সুবিধা, পাওয়ার সেভিং ব্লুটুথ ৪.০ টেকনোলজি এবং নিউ জেনারেশন জিপিএস। এই ফোনটিতে ৪জি/এলটিই সুবিধা পাওয়া যাবে।

ডুয়াল সিম ডুয়াল স্ট্যান্ডবাই সুবিধার এই স্মার্টফোনটিতে দেওয়া হয়েছে শক্তিশালী লি-পলিমার ৩১৫০ মিলি অ্যাম্পিয়অর ব্যাটারি যাতে সারাদিনই ফোনটি স্বাচ্ছন্দে ব্যবহার করা যাবে। এতে আরো রয়েছে এক্সট্রিম পাওয়ার সেভিং মোড, যার মাধ্যমে লং জার্নিতেও খুব ভালো ব্যাটারি ব্যাকআপ পাওয়া যাবে। এক্সট্রিম পাওয়ার সেভিং ফিচারটি অন থাকলে ৩০০ ঘন্টার বেশি কথা বলার সুবিধা পাওয়া যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

বিশেষ ফিচার হিসেবে থাকছে নিউ জেনারেশন ফাস্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। যাতে ফোন খুব দ্রুত আনলক করা যাবে শুধু তাই নয়, ব্যবহার করা যাবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেলফি শাটার খুব সহজেই। বাচ্চাদের হাতে ফোন দিয়ে নিশ্চিন্তে থাকা যাবে চাইল্ড মোডটি অন করে দিয়ে। অত্যাধুনিক ফিচার হিসেবে আছে ক্যামেলিওন, যার মাধ্যমে যে কোন ধরনের এ্যানভাইরনমেন্টাল কালার নিয়ে আপনি আপনার মনের মতো থিম সাজাতে পারবেন। এছাড়াও নতুন টেকনোলোজি এর মধ্যে রয়েছে এইচকিউ কল রেকর্ডিং, স্মার্টটিভিতে কানেক্ট করার জন্য কাস্ট স্ক্রিন, হাই কোয়ালিটি ভিডিও এডিটিংয়ের জন্য ভিডিও এডিটর এবং ব্যবহার সহজ করার জন্য দেওয়া হয়েছে স্মার্ট গেশ্চার।

এই অত্যাধুনিক স্মার্টফোনটির দাম মাত্র ১৫,৯৯০ টাকা।

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.