ই-পেমেন্টে ভাতা মুক্তিযোদ্ধাদের

এখন থেকে মুক্তিযোদ্ধারা ভাতা পাবেন ই-পেমেন্টে। মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ইলেকট্রনিক উপায়ে প্রদানের জন্য একটি উদ্ভাবনী ইলেকট্রনিক পেমেন্ট মডেল বাস্তবায়নে মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সভাকক্ষে উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শেখ মিজানুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন।

এ সমঝোতা চুক্তির আওতায়, মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতা ইলেকট্রনিক উপায়ে সহজে ও স্বল্প খরচে উপকারভোগীদের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর জন্য পাইলটিং কার্যক্রম গ্রহণ করবে এবং এর অভিজ্ঞতার আলোকে সারাদেশে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট কার্যক্রম সম্প্রসারণ করা হবে। মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতার আওতায় সুবিধাভোগীদের ভাতা ইলেকট্রনিক উপায়ে প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর দক্ষতা বৃদ্ধি করা হবে। এছাড়া মাঠপর্যায়ে সুবিধাভোগীদের জাতীয় পরিচয়পত্র-ভিত্তিক একটি সঠিক ও নির্ভুল ডাটাবেইজ তৈরির লক্ষ্যে একটি ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম তৈরি এবং দেশব্যাপী তা বাস্তবায়নের জন্য কারিগরী ও আর্থিক সহায়তা নিশ্চিত করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

এই সমঝোতা স্মারকের আওতায় গৃহীত উদ্যোগসমূহ বাস্তবায়নে মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয় এটুআই প্রোগ্রামকে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট, ডোমেন নলেজ, পদ্ধতি পর্যবেক্ষণ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সকল ধরণের সহযোগীতা নিশ্চিত করে প্রয়োজনীয় সকল পক্ষের সাথে যোগাযোগ স্থাপন ও সমন্বয় সাধন করবে। এছাড়া ‘ইলেকট্রনিক পেমেন্ট পাইলটিং কার্যক্রম’ মনিটরিং ও মূল্যায়ন এর মাধ্যমে সারাদেশে সম্প্রসারণের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় নীতি নির্ধারণ, পরিবর্তন বা সংশোধনের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

এক্ষেত্রে এটুআই প্রোগ্রাম মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতার সুবিধাভোগীদের ইলেকট্রনিক ডাটাবেইজ তৈরির জন্য কারিগরী ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে এবং দেশব্যাপী ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম এর ডাটা এন্ট্রি বাস্তবায়নে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ডিজিটাল সেন্টারের সহায়তায় মাঠপর্যায়ে নির্দেশনা প্রদান করবে। ইলেকট্রনিক পেমেন্ট মডেল বাস্তবায়ন এবং দেশব্যাপী সম্প্রসারণের জন্য বিভিন্ন আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ও মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয় সাধন করবে।

এছাড়া ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সম্পর্কে উপকারভোগীদের মধ্যে সচেতনতা তৈরির জন্য মাঠপর্যায়ে ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রচার প্রচারণার ব্যবস্থা করার পাশাপাশি ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সংক্রান্ত অর্জিত অভিজ্ঞতা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রচারের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ ও সহযোগীতা নিশ্চিত করবে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব দিলীপ কুমার বণিক, মুক্তিযুদ্ধ-বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও এটুআই প্রোগ্রামের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সিনিউজভেয়স//ডেস্ক/

Please Share This Post.