‘ই-কমার্সে ভ্যাট থাকছে কি না তা নিয়ে সংশয় আছে’

অনলাইন কেনাকাটায় ভ্যাট বসছে কি না তা নিয়ে এখনো সংশয় আছে বলে জানিয়েছে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ বা ইক্যাব।প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য ঘোষিত বাজেটে ই-কমার্সকে পুনরায় সংশোধন করে সংজ্ঞায়িত করাসহ এই খাতে চলমান আরোপকৃত মূসক অব্যাহতির সুপারিশ করেছে সংগঠনটা।

শনিবার (৯ জুন) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ই-ক্যাব আয়োজিত ‘২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য ঘোষিত বাজেট প্রতিক্রিয়া’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এ সুপারিশ জানানো হয়।

সংগঠনটির মহাসচিব আবদুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে অনলাইন কেনাকাটাকে নতুন সংজ্ঞায়ন করে ভার্চুয়াল কমার্স নাম দিয়ে ৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপের কথা বলা হয়েছিল। পরে আবার শোনা যাচ্ছে, সেটি ই-কমার্সে আরোপ করা হচ্ছে না। কিন্তু তারপরও আমরা এখনো বিষয়টি নিয়ে সংশয়ে আছি।

বাজেটে প্রণিত এই আলাদা আলাদা সংজ্ঞার বিপরীতে ই-ক্যাব প্রস্তাবিত সমণ্বিত সংজ্ঞাটি হলো- যাদের নিজস্ব কোনো বিক্রয় কেন্দ্র নেই এবং ইলেক্ট্রনিক্স নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয় ও আর্থিক লেনদেনের জন্য ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’ পদ্ধতি ব্যবহার করে থাকে এবং যাদের নিজস্ব বিক্রয় কেন্দ্র থেকেও অনলাইনে ক্রয়-বিক্রয় ও আর্থিক লেনদেন করে তারা বা ওই প্রতিষ্ঠান ই-কমার্সের অন্তর্গত থাকবে।

‘২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য ঘোষিত বাজেটে প্রস্তাবিত বাজেটে ই-কমার্সের মধ্যে ভার্চুয়াল বিজনেস ও অনলাইন পণ্য বিক্রয় বিষয় দুটিকে আলাদাভাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে। সেখানে ভার্চুয়াল বিজনেসকে ইন্টারনেটে বা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে পণ্য ক্রয় বিক্রয়কে বোঝানো হয়েছে। আর এক্ষেত্রে ৫ শতাংশ হারে মূসক আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। আর অনলাইনে পণ্য বিক্রয় বলতে ওইসব প্রতিষ্ঠান বোঝায় যাদের নির্দিষ্ট কোনো বিক্রয় কেন্দ্র নেই। অনলাইনেই তাদের ব্যবসা কেন্দ্র পরিচালিত হয়।’

এর আগে গত শুক্রবার এনবিআর বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে জানায়, অনলাইন কেনাকাটায় কোনো ভ্যাট থাকছে না। এটিকে ছাপার ভুল বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া।

বেসিস ই-কমার্স স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ কামাল বলেন, এভাবে প্রতিবার বাজেটের পর আমাদের শোরগোল তুলতে হয়। তখন আবার ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়। আমরা চাই সরকার একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ই-কমার্সে ট্যাক্স হলিডে ঘোষণা করুক। এটা আমাদের অন্যতম একটা দাবি থাকছে সরকারের কাছে।

ই-ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সারের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ তমাল, সহ-সভাপতি রেজওয়ানুল হক, অর্থ-সম্পাদক মো. আব্দুল হক, যুগ্ম সম্পাদক নাসিমা আক্তার নিশা, আশিক চক্রবর্তীসহ প্রমুখ।

সিনিউজভয়েস//ডেস্ক/