ইন্টারব্র্যান্ডের তালিকায় ৭২-এ উঠে এসেছে হুয়াওয়ে

ইন্টারব্র্যান্ড পরিচালিত সেরা গ্লোবাল ব্র্যান্ড-২০১৬-এর তালিকায় ৭২ নম্বরে উঠে এসেছে টেকনোলজি জায়ান্ট হুয়াওয়ে। গত ২০১৫ সালের অবস্থান থেকে ১৬ ধাপ এগিয়ে এসেছে প্রতিষ্ঠানটি। ইন্টারব্র্যান্ডের তালিকায় চীনা প্রতিষ্ঠান হিসেবে হুয়াওয়েই প্রথম যারা পর পর দুই বছর তালিকার উপরের দিকে উঠে আসছে। গত ২০১৪ সালে সেরা গ্লোবাল ব্র্যান্ড হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিল হুয়াওয়ে।

ইন্টারব্র্যান্ডের তথ্য অনুযায়ী, ‘২০১৬ সালের সেরা গ্লোবাল ব্র্যান্ড হিসেবে আবারো আলোচিত হয়েছে। গত বছরের তুলনায় ১৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে হুয়াওয়ের ব্র্যান্ড মূল্যের পরিমাণ এখন ৫,৮৩৫ মার্কিন ডলার। প্রযুক্তি খাতে ব্র্যান্ড হিসেবে হুয়াওয়ে উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে এবং এই ধারাবাহিকতায় এবছর তালিকার ৮৮ থেকে ৭২ স্থানে উঠে এসেছে প্রতিষ্ঠানটি। এমন একটি বিশ্বাস এখন হুয়াওয়ের উপর গ্রাহকদের এসে গেছে যে গ্রাহক সন্তুষ্টিতে হুয়াওয়ে বেশি গুরুত্ব দেয় এবং মানসম্মত পণ্য ও সেবা প্রদানের মাধ্যমে অর্থের উপযুক্ত ব্যবহার নিশ্চিৎ করে। ব্র্র্যান্ড ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে হুয়াওয়ে প্রতিনিয়ত প্রমাণ করে যে, উন্নত বিশ্বে একে অপরের সঙ্গে যেনো সংযুক্ত থাকা যায় সে লক্ষ্যে কিভাবে প্রযুক্তি খাতে উদ্ভাবণী পণ্য, সেবা ও সল্যুশন নিয়ে আসা যায়। বিশেষ করে নেটওয়ার্ক ও এন্টারপ্রাইজ ব্যবসার জন্য বিখ্যাত ইউরোপে বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি প্রযুক্তি খাতে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করে যাচ্ছে। চলতি বছর হুয়াওয়ে বেশ কয়েকটি উচ্চমানের পণ্য বাজারে ছেড়েছে যেগুলো এই প্রতিষ্ঠানটির আরো বেশি ইতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরি করেছে। চীনে শীর্ষস্থানে অবস্থানের পর হুয়াওয়ে এখন বিশ্ব বাজারে নিজেদের অবস্থান শক্ত করতে গঠনমূলক কাজ করে যাচ্ছে।’

উল্লেখযোগ্য হারে আয়ের মধ্য দিয়ে হুয়াওয়ে বিশ্ব বাজারে নিজেদের ব্র্যান্ডের প্রভাব বিস্তার করছে। গত ২০১৫ সালে হুয়াওয়ে বিশ্বব্যাপি ১০৮ মিলিয়ন স্মার্টফোন রপ্তানী করেছে।

‘প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উন্নত বিশ্বে সংযুক্ত থাকতে হুয়াওয়ে বিশেষভাবে কাজ করছে ক্লাউড, সফটওয়্যারভিত্তিক নেটওয়ার্ক, ইন্টারনেট এবং কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে।’ বলেছেন হুয়াওয়ে কর্পোরেট মার্কেটিং-এর প্রেসিডেন্ট কেভিন ঝ্যাং।

শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে হুয়াওয়ে নিজেদের গবেষণা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে বিক্রি থেকে ১০ শতাংশ বার্ষিক আয়ের মাইলফলক সৃষ্টি করেছে। এছাড়া সারা বিশ্বে ১৬টি গবেষণা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছে যার মধ্যে রয়েছে প্যারিসের হুয়াওয়ে অ্যাসথেটিক্স রিসার্চ সেন্টার যেখানে ভবিষ্যতে দৃষ্টি-নন্দন পণ্য তৈরির লক্ষ্যে ফ্রান্সের অভিজাত ব্র্যান্ডগুলোর সঙ্গে মিলে কাজ করবে হুয়াওয়ে। জার্মানীর ওয়েট্জলারে লাইকা ক্যামেরা এজি’র সঙ্গে মিলে অতি সম্প্রতি হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠা করেছে গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র ‘ম্যাক্স ব্যারেক ইনোভেশন ল্যাব’। স্মার্টফোনের ক্যামেরায় আরো নতুনত্ব ও উচ্চমানের ছবি পেতে উক্ত ল্যাব প্রতিষ্ঠা করেছে হুয়াওয়ে। উল্লেখ্য যে, চীন, ইউরোপ ও অন্যান্য অঞ্চলে আরো ১০টি ল্যাব ইতিমধ্যে চালু করেছে হুয়াওয়ে যেখানে প্রায় ৬০০টিরও বেশি অংশীদার ব্র্যান্ডের সঙ্গে মিলে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। অংশীদার এবং অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপারদের সহায়তা করতে হুয়াওয়ে সম্প্রতি এক বিলিয়ন ডলার বাজেটের ‘ডেভেলপমেন্ট এ্যানাবেল্মেন্ট প্রোগ্রাম’ উন্মোচণ করেছে হুয়াওয়ে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.