ইন্টারনেটকে জরুরী সেবা ঘোষনার পরও পুলিশী হয়রানি

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের ঘটনায় দেশে ১০ দিনের সাধারণ ছুটি ঘোষনা করলেও ইন্টারনেটকে জরুরী সেবা হিসেবে সরকার ঘোষণা দিলেও দেশের বিভিন্ন স্থানে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবায় নিয়োজিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা নানান রকম বাধার শিকার হচ্ছে। বিচ্ছিন্ন ভাবে বেশ কিছু এলাকায় স্থানীয় ইন্টারনেট লাইন মেরামতের কাজে পুলিশের হয়রানি শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর জাতীয় সংগঠন আইএসপিএবি’র মহাসচিব ইমদাদুল হক বলেন, পুলিশ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করার কথা থাকলেও দেখা যাচ্ছে যে, ইন্টারনেট সেবা প্রদানের কাজে প্রতিষ্ঠানগুলো বিচ্ছিন্নভাবে বিভিন্নভাবে হয়রানির স্বীকার হচ্ছে।

ইমদাদুল বলেন, গতকাল মোহাম্মাদপুর কাটাসুর ৩ নম্বর গোলির লাইসেন্সধারী একটি ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের এক ব্যবসায়ীকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চনা করা হয়েছে অফিস খোলা রাখার অপরাধে।  ব্যবসায়ী সরকারী চিঠি দেখানোর পরেও পুলিশ কর্তৃক লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনাটি দুঃখজনক। আমরা উক্ত বিষয়টি মন্ত্রী মহোদ্বয় অবহিত করেছি তিনি আইজিপি সাহেবকে জানিয়েছেন। পাশাপাশি সারাদেশে আমাদের বিভাগীয় কমিটি করেছি যার মাধ্যমে আমাদের ব্যবসায়িদের হয়রানির খবরাখবর নিয়মিত পাই এবং যাতে তাদের আর কোনো প্রকার হয়রানির শিকার হতে না হয় সেটাও নজর রাখছি।

এদিকে ইনফো লিঙ্ক এর পরিচালক সাকিফ আহমেদ জানিয়েছেন বারিধারা জে ব্লক, বারিধারা ডিপ্লোমেটিক জোনে গতকালও তারা ঝামেলার শিকার হয়েছে। পাশাপাশি কামরাংগী চর,মাঝিরঘাট,বাংলাবাজার এলাকায় সদরঘাট থানায় ও চট্রগ্রামেও পুলিশী নির্যাতনের শিকার হচ্ছে আমাদের জরুরী ইন্টারেনেট সেবায় নিয়োজিত কর্মীরা ।

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/২৭মা./২০

 

 

 

 

Please Share This Post.