আমদানি করা মোটরসাইকেলের প্রতি আগ্রহী বাংলাদেশীরা

সাম্প্রতিক আইনের পরিবর্তনের কারনে বাংলাদেশীরা কি স্বদেশী মোটরসাইকেল কেনার প্রতি প্রভাবিত হবে? অনলাইনে গাড়ি বেচাকানার সবচেয়ে অন্যতম মাধ্যম, কারমুডি, তাদের শত হাজার লিস্টিং ও ব্রাওজিং ডাটা পরীক্ষা করে আবিষ্কার করেছে যে এশিয়া মহাদেশের কোন কোন জায়গায় মোটরসাইকেল চার-চাকার যানবাহনের উপর দিয়ে পছন্দ করা হয় এবং সবচেয়ে অন্যতম মোটরসাইকেল এর খোঁজে কোন কোন ব্র্যান্ড এর আছে আধিপত্য।

কারমুডি গ্লোবাল লিস্টিং এর ২৭% জুড়ে আছে মোটরসাইকেল, যার অধিকাংশই এশিয়াতে অবস্থিত। বর্তমানে, কারমুডি বাংলাদেশের অফারগুলোতে মাত্র ১৪% হল মোটরসাইকেল। তবে, বাংলাদেশের রয়েছে ১৫ কোটির জনসংখ্যা, যা তার দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় অনেক বেশি ও কখনো কখনো এমনকি সংযুক্ত করার পরেও তাঁর বেশি। এর মানে হল, লিস্টিং এর একটি ছোট শতাংশ এখনও দুই-চাকা যানবাহন বিক্রয় এ উল্লেখযোগ্য সম্ভাব্য জাগায়।

সেই ক্রেতারা যারা carmudi.com.bd এর মোটরসাইকেল অপশন এর প্রতি আগ্রহী, তারা জাপানে বানানো ইয়ামাহা মডেল সবচেয়ে বেশি ভিসিট করে। সুজুকি পায় ৩৫০,০০০ পেইজ হিট, যার সবচেয়ে জনপ্রিয় মডেল হল এফ জেড-এস বাইক ও ফেজার। বাজাজ পালসার, একটি ভারতীয় ব্র্যান্ড, হল দ্বিতীয় সর্বাধিক জনপ্রিয় বাইক।

মোটরসাইকেলে স্থানীয় আগ্রহ নিশ্চিতভাবে সাম্প্রতিক বাংলাদেশি সরকারি বাজেটে বদল আনাতে প্রভাবিত হবে। এর মধ্যে আছে কমপ্লিটলি-নকড-ডাউন (সিকেডি) মোটরসাইকেল আমদানির উপর ডিউটি ফি বাড়ানো, যা খণ্ডে খন্ডে আমদানি করে আনা হয় ও দেশের ভেতরে থাকা অবস্থায় প্রতিযোগিতামূলক দামে পুনরায় একত্র করা হয়।

এই পদক্ষেপ দেশীয় সাইকেল উত্পাদন রক্ষা ও অনুপ্রাণিত করার জন্য একটি উদ্দীপক হিসেবে দেখা যেতে পারে। ওয়ালটন , রানার ও যমুনার মতো স্থানীয় গ্রুপ দাবী করছে যে তারা আগামী তিন বছরের মধ্যে তারা বাজারের ৫০% পর্যন্ত শেয়ার ধরে নিতে পারবে, যেহেতু এখন তারা বাংলাদেশি গ্রাহকদের জন্য স্থানীয়ভাবে বাইক উৎপাদনে লেগে পড়েছে। এখন এটি দেখা বাকি যে বাংলাদেশীরা কি দেশি মডেল ও স্থানীয়ভাবে গড়া বাইক দ্বারা আগ্রহী হবে কি না।  ২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠার পরে কারমুডি বর্তমানে বাংলাদেশ, ক্যামেরুন, কঙ্গো, ঘানা, ইন্দোনেশিয়া, আইভরি কোস্ট, মেক্সিকো, মিয়ানমার, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, কাতার, রুয়ান্ডা, সৌদি আরব, সেনেগাল, শ্রীলঙ্কা, তাঞ্জানিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ভিয়েতনাম, এবং জাম্বিয়ায় কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এই অনলাইন গাড়ির প্ল্যাটফর্ম ক্রেতা, বিক্রেতা এবং যানবাহন ব্যবসায়ীদের গাড়ি, মোটরসাইকেল এবং বাণিজ্যিক যানবাহন খুঁজে পেতে সাহায্য করে।

সিনিউজভয়েস/ডেক্স

Please Share This Post.