আবারো ৩৬ লাখ পরিবারের জন্য অর্থ সহায়তা কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

সিনিউজ ডেস্কঃ আবারো করোনা পরিস্থিতির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৬ লাখ পরিবারের জন্য জিটুপি পদ্ধতিতে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে সরাসরি উপকারভোগীর অ্যাকাউন্টে অর্থ সহায়তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ের এই অর্থ সহায়তা কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

২০২০ সালে করোনায় কর্মহীন দশ লাখ প্রকৃত উপকারভোগীদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা সফলতার সাথে পৌঁছে দেয়ায় এবারও বিকাশের মাধ্যমে তাদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক অনুদান পৌঁছে যাচ্ছে। আগামী তিন দিনের মধ্যেই সকল উপকারভোগীর বিকাশ অ্যাকাউন্টে এই অর্থ সহায়তা পৌঁছে যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এই আর্থিক সহায়তায় উপকারভোগীরা হচ্ছেন কোভিড-১৯ এর প্রভাবে কর্মহীন হওয়া প্রান্তিক মানুষেরা। প্রধানমন্ত্রীর এই মানবিক উদ্যোগে প্রতিটি পরিবার ২৫০০ টাকা করে আর্থিক সহায়তা পাচ্ছেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ অবকাঠামোগত সুবিধা ব্যবহার করে এবারও জাতীয় পরিচয়পত্রের ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তির কাছে স্বচ্ছতা, দ্রুততা ও নিরাপত্তার সাথে মোবাইল আর্থিক সেবাই সহায়তার অর্থ বিতরণ করা হচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন জেলা থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং এ সংযুক্ত উপকারভোগীদের সাথে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

সরকারী সাহায্যের এই টাকা ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে উপকারভোগীর কোন খরচ লাগছে না। মোট ক্যাশ আউট খরচের ১৫ টাকা দেবে সরকার, বাকি ৩১.২৫ টাকা বিকাশ বহন করবে এই মহতী উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে। সাহায্য পাওয়া পরিবারের সদস্যরা যেন নির্বিঘ্নে এই টাকা ক্যাশ আউট করতে পারেন সে ব্যাপারে সমস্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

সরকারের দূরদরর্শী সিদ্ধান্তে ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমানের কল্যাণে জরুরী এই সময়ে দুস্থ পরিবার গুলোর মাঝে আর্থিক সহায়তা যথাযথ ভাবে বিতরণ করা সম্ভব হচ্ছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এবং মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপকারভোগীদের সামাজিক নিরাপত্তা ভাতা, প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কয়েক লক্ষ উপকারভোগীর ভাতা, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভাতা, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ভাতা, বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স মন্ত্রণালয়ের ভাতা সফলতা, স্বচ্ছতা ও দ্রুততার সাথে উপকারভোগীদের মাঝে বিতরণ করে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ লক্ষ্যমাত্রা পূরণের সহযোগী হিসেবে কাজ করে আসছে দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ।

Please Share This Post.