আগামীকাল শুরু হচ্ছে ৪৮ ঘণ্টাব্যাপী ‘গেম জ্যাম’


বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সহায়তায় ৫ ও ৬ মে জিপি হাউজে গেম জ্যামের আয়োজন করবে গ্রামীণফোণ ও হোয়াইট বোর্ড। গেম জ্যাম প্ল্যাটফর্মটি বাংলাদেশে ক্রাউড সোর্স থেকে শুরু করে গেম ডেভেলপ এবং বাংলাদেশের মোবাইল গেমের উন্মোচনে কাজ করবে।

মোবাইল গেম তৈরির প্রতিযোগিতা ‘গেম জ্যাম’ চলাকালীন দলগুলোকে অত্যন্ত প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশে খাত বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে গঠিত বিচারকদের প্যানেলের মাধ্যমে যাচাই করা হবে। প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৭ মে।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। প্রতিযোগিতা থেকে সেরা তিনটি দল নির্বাচন করে এ বছরের জুলাইয়ের মধ্যে তাদের পণ্য ও সেবাগুলোর বাজার সূচনায় প্রস্তুত করে তোলা হবে। দলগুলোর তৈরি সবগুলো গেমেরই উন্মোচন করবে গ্রামীণফোন।

গেম জ্যামের জন্য আবেদন পত্র গ্রহণ শুরু হয় গত ২৩ মার্চ এবং শেষ হয় গত ১৩ এপ্রিল। আবেদন করা দলগুলোর মধ্য থেকে নির্বাচিত ২৫টি দল ৪৮ ঘণ্টাব্যাপী এ জ্যামে অংশগ্রহণ করছে। জ্যাম চলাকালীন তারা নির্দিষ্ট কাজের ভিত্তিতে একে অপরের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করবে। প্রতিযোগিতা থেকে বিজয়ী সেরা তিনটি দল বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে নিজেদের তুলে ধরার ক্ষেত্রে গ্রামীণফোন থেকে সার্বিক সকল সহায়তা পাবে।

বিজয়ী দলগুলোকে নিজেদের গেমের বাজার সম্প্রসারণে এবং গেমগুলোকে বৈশ্বিকভাবে নির্দিষ্ট গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিতে আর্থিক ও বিশেষজ্ঞ সহায়তা প্রদান করা হবে। গেমগুলো গ্রামীণফোনের উন্নত ডিজিটাল পণ্যের অংশ বলে বিবেচিত হবে এবং একই সঙ্গে টেলিনরের সংযুক্ততার মাধ্যমে পাবে বিশ্বমানের মর্যাদা।

অংশগ্রহণকারীদের পরিচর্যায় তাদের প্রশিক্ষণগত প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। এ উদ্যোগের সহযোগী অন্যান্য প্রতিষ্ঠান হচ্ছে এমল্যাব (কৌশলগত সহযোগী), স্যামসাং (রিসোর্স সাপোর্ট), অপেরা (ইন্ডাস্ট্রি পার্টনার), ওয়াওবক্স (ডিজিটাল সহায়তা) এবং অ্যাপনোমেট্রি (কমিউনিটি এনগেজমেন্ট)।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক