আইসিটি মন্ত্রীর সঙ্গে সিডস্টার ইনোভেশন পুরস্কার অর্জনকারীর সাক্ষাৎ

অ্যাপস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ‘সিমেড হেলথ’ এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও ড. খন্দকার আবদুল্লাহ আল মামুন ২৩ এপ্রিল সোমবার, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে আইসিটি বিভাগে তার দপ্তরে সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাতকালে সিমেড হেলথ লি কর্তৃক সুইজারল্যান্ডে টিএজি হিউয়ার কর্তৃক ‘সিডস্টার ইনোভেশন পুরস্কার-২০০৮’ প্রাপ্তি বিষয়ে মন্ত্রীকে অবহিত করেন। এ সময় মন্ত্রী তাকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানান। তিনি প্রথমবারের মতো এ আন্তর্জাতিক পুরষ্কার প্রাপ্তি সিমেড এবং বাংলাদেশের উভয়ের জন্য সুখবর বলে উল্লেখ করেন। তিনি এ প্রতিষ্ঠানকে সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস দেন।

সিমেড এর পরিচালক জানান, ইনোভেশন পুরস্কার হিসেবে সিমেড হেলথকে ৫০ হাজার ডলার দেওয়া হয়। সিমেড শীর্ষ ১২টি স্টার্টআপস এর মধ্য থেকে শীর্ষ ইনোভেশন পুরস্কার ২০১৮ অর্জন করে। উল্লেখ্য, সিমেড ২০১৬ সালে আইসিটি বিভাগ কর্তৃক ‘১০০০ ইনোভেটিভ-২০২১’ প্রকল্প থেকে ১০ লাখ টাকা পুরস্কার পায়। এ থেকে এই প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়।

সিডস্টার হল একটি লাভজনক সুইস গ্রুপ যেটি সেপ্টেম্বর ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত, যার উদ্দেশ্য প্রযুক্তি এবং উদ্যোক্তার মাধ্যমে মানুষের জীবন ব্যবস্থা উন্নত করা। সিডস্টার ওয়ার্ল্ড বিশ্বের বৃহত্তম সিড-স্ট্যাজ স্টার্টআপ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ৬৬টি দেশের শীর্ষ প্রতিভা অর্জন কারীদেরকে পরামর্শদান, নেটওয়ার্কিং এবং তহবিল ইত্যাদি সেবা প্রদান করে থাকে। এ বছরে সিডস্টার ওয়ার্ল্ড সামিটে ৬৬টি দেশ থেকে ৬৬ উদ্ভাবনী স্টার্টআপস অংশ গ্রহণ করে। এবার আঞ্চলিকভাবে বিজয়ীদের নিয়ে গ্লোবাল সামিটটি সুইজারল্যান্ডের লাউসনে সুইস টেক কনভেনশন সেন্টারে ৯ -১২ এপ্রিল ২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়। ১২টি দেশের ১২জন শীর্ষ উদ্যোক্তা এবং ৫ দেশের শীর্ষ ব্যক্তিদের নিয়ে আন্তর্জাতিক এক্সিকিউটিভ প্যানেলের মাধ্যমে গ্লোবাল উইনার, টপ ইনোভেশন, টপ ফিনটেক, আফ্রিকান হেলথ টেক, আফ্রিকান এনার্জি, নারী উদ্যোক্তা, সর্বাধিক সময় সংরক্ষণ এবং টপ এডুটেক স্টার্টআপস- এই ৮ বিষয়ের ওপর এই পুরস্কার প্রদান করা হয় ।

সিমেড এর স্বাস্থ্য মনিটরিং ব্যবস্থাটি স্মার্টফোনের সঙ্গে সম্পৃক্ত। সিমেড স্মার্ট মেডিকেল ডিভাইস সমূহ ব্যবহার করে মানবদেহের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণ সমূহের পরিমাপ প্রদর্শন করে ও প্রাপ্ত তথ্যসমূহ সুরক্ষিত ক্লাউড সার্ভারে সংরক্ষণ করে থাকে। ব্যাবহারকারিরা তাদের স্বাস্থ্যের সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে তাৎক্ষণিক সংকেত জানতে পারবেন অত্যাধুনিক এই সিস্টেমের মাধ্যমে। সিমেড এর রেকর্ডকৃত স্বাস্থ্য সংক্রান্ত তথ্যাবলি ব্যবহারের মাধ্যমে ডাক্তারগণ রোগ নির্ণয়ের সময় কমিয়ে এনে উন্নত চিকিৎসা প্রদানে সমর্থ হন।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক