আইডিইবি’র ৫০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও গণপ্রকৌশল দিবসের বছরব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা

মুজিবশতবর্ষে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর জাতীয় কর্মসূচির সাথে সঙ্গতি রেখে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনীয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)’র সুবর্ণ জয়ন্তী ও গণপ্রকৌশল দিবস-২০২০ এর বছরব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ (২ নভেম্বর) সকালে ঢাকার কাকরাইলে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে আইডিইবি’র সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামসুর রহমান জানান আগামী ৮ নভেম্বর ঢাকায় আইডিইবি ভবনে রেলপথমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এমপি ও শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান নওফেল এমপি পায়রা অবমুক্তকরণ ও বেলুন উড়িয়ে র‌্যালিপূর্ব আলোচনা ও বর্ণাঢ্য র‌্যালির উদ্বোধন করবেন। একই দিন বিকেল ৪টায় প্রতিপাদ্যের আলোকে আলোচনা ও বছরব্যাপী কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। তিনি জানান সমৃদ্ধ বাংলাদেশের রূপকল্প এগিয়ে নিতে সম্ভাবনাময় সমুদ্র অর্থনীতির সম্ভাবনার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে এবারের দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘নীল অর্থনীতি এনে দেবে সমৃদ্ধি”।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়-মুজিবশতবের্ষ ৮ নভেম্বর ২০২০ গণপ্রকৌশল দিবস ও সুবর্ণ জয়ন্তীর আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়ে ৮নভেম্বর ২০২১ পর্যন্ত ‘নীল অর্থনীতি এনে দেবে সমৃদ্ধি’ প্রতিপাদ্য এবং বঙ্গবন্ধু’র শিক্ষা দর্শন ও জাতীয় জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে দেশব্যাপী ১০০টি সেমিনার, পরিবেশ রক্ষা ও সবুজায়নে বৃক্ষরোপণ বিষয়ক লিফলেট বিতরণ ও দেশব্যাপী ৫০ হাজার ফলজ, বনজ, ঔষধি গাছের চারা রোপন, দেশের প্রান্তিক পর্যায়ের গৃহহীনদের জন্য ন্যূনতম ৫০টি গৃহনির্মাণ ও হস্তান্তর, দেশের সকল জেলায় আইডিইবি’র উদ্যোগে বিনামূল্যে প্রযুক্তি পরামর্শ প্রদান, বাংলাদেশ-ভারত প্রফেশনাল স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট, খুলনা ও বাংলাদেশ ভারত ডেইরি এন্ড ফুড প্রসেসিং ইনস্টিটিউট, সিরাজগঞ্জের মাধ্যমে বিনা মূল্যে জনসাধারণকে বিভিন্ন মেয়াদি দক্ষতা বিষয়ক বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ প্রদান, বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা দর্শন ও সোনার বাংলা বিষয়ক রচনা প্রতিযোগিতা এবং মুক্তিযুদ্ধে আইডিইবি, বঙ্গবন্ধু’র ছবি, মুক্তিযুদ্ধের উপর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, নাটক ও চলচ্চিত্রের মাধ্যমে প্রযুক্তিকে জনপ্রিয় করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় চলচ্চিত্র ও নাট্য ব্যক্তিত্ব, বিশিষ্ট সাহিত্যিক, সাংবাদিকদের আইডিইবি স্বর্ণপদক প্রদান, কোভিড-১৯, ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, কিডনী, উচ্চ রক্তচাপ, মাদক এর কুফল সম্পর্কে সচেতনতামূলক আলোচনা ও ফ্রি স্বাস্থ্যসেবা কর্মশালা এবং জনগণের মধ্যে ৫০ হাজার মাস্ক বিতরণ এবং দুঃস্থ ও অসহায় জনগোষ্ঠির মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হবে। উল্লেখ্য, ইনস্টিটিউশনের ৬৪টি জেলা ও ৭টি সাংগঠনিক জেলা, ৪৮৫টি উপজেলা এবং শতাধিক সার্ভিস এসোসিয়েশনের মাধ্যমে দেশব্যাপী বর্ণিত কর্মসূচি পালন করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে আইডিইবি’র দীর্ঘ ৫০ বছরের সাংগঠনিক ও ইনস্টিটিউশনাল কার্যক্রমের সংক্ষিপ্ত চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আইডিইবি’র দর্শনের আলোকে ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান তুলে ধরা হয়। নেতৃবৃন্দ বলেন, আইডিইবি’র আন্দোলন সংগ্রামের দীর্ঘ ইতিহাসে দেশে ইতিবাচক আন্দোলনের সংস্কৃতি গড়ে তুলতে পারাটাই ছিল বড় অর্জন। এছাড়া, মানবসম্পদ উন্নয়নে মানসম্মত কারিগরি শিক্ষার প্রসার, পানিসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার, টেকসই যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, পরিকল্পিত নগরায়ন ও কৃষি জমা রক্ষা, প্রযুক্তিভাবনাযুক্ত রাজনীতির প্রচলন, জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় গোজামিল ও অপচয় রোধে আইডিইবি’র আহ্বান জাতিকে সঠিক নির্দেশনা দিয়েছে। যার সুফল দেশ ও জাতি পাচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য উপস্থাপন করেন সাধারণ সম্পাদক মোঃ শামসুর রহমান। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সভাপতি এ কে এম এ হামিদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি এ কে এম আব্দুল মোতালেব, যুগ্ম সম্পাদক মোঃ ফজলুর রহমান খান, জনসংযোগ ও প্রচার সম্পাদক মোঃ সিরাজুল ইসলাম, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক আলী ইদরীস, আইসিটি ও গবেষণা সম্পাদক শাহজাহান কবীর, সাংগঠনিক সম্পাদক রেহান মিয়া, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান নয়ন প্রমুখ।

Please Share This Post.