আইএসপিএবির অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিসিসির বক্তব্য

ইনফো সরকার (৩য় পর্যায়) প্রকল্পে অনিয়মের অভিযোগ তুলেছে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি)।

২৩ আগস্ট দুপুরে, রাজধানীর হোটেল লা ভিঞ্চিতে এক সংবাদ সম্মেলনে আইএসপিএবি’র সভাপতি আমিনুল হাকিম বলেন, ইনফো-সরকার (৩য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় দেশের ২৬০০ ইউনিয়নে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকারের এ ভালো উদ্যোগটিকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে যাচ্ছে বিসিসি (বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল), বেসরকারি এনটিটিএন প্রতিষ্ঠানগুলো। একনেকের সিদ্ধান্তকে অমান্য করে ৮টি পর্যায়ের দরপত্রকে দুটি ভাগে দিয়ে দিয়েছে বিসিসি। আর যোগাসাজশের মাধ্যমে সামিট কমিউনিকেশন ও ফাইবার অ্যাট হোম নামে দুটি এনটিটিএন প্রতিষ্ঠান এ দরপত্র হাতিয়ে নিয়েছে। এছাড়াও এনটিটিএন প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট সেবা দেয়ার এখতিয়ার না থাকলেও এ দরপত্রের মাধ্যমে তারা বিধি বহির্ভূত এ সুযোগটি পেয়ে যাচ্ছে। প্রকল্প জুড়ে থাকছে অনেক অনিয়ম।

আইএসপিএবি’র অভিযোগের প্রতিউত্তরে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) তাদের বক্তব্যে প্রদান করেছে।

বিসিসি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ইনফো সরকার ৩য় পর্যায় প্রকল্পের আওতায় দেশে ২,৬০০ ইউনিয়নে ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি প্রদান করা হবে। এ লক্ষ্যে ডিপিপি অনুসরণ করে উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল স্থাপনের জন্য দরপত্র আহবান করা হয়েছিল। দেশে বিদ্যমান এনটিটিএন অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল ব্যাকবোন ব্যবহার করে উপজেলা থেকে ইউনিয়ন পর্যন্ত নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ সংক্রান্ত ডিপিপি’র নির্দেশনা অনুসরণ করে এনটিটিএনদের মাধ্যমে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল স্থাপনের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। এনটিটিএনদের বিদ্যমান নেটওয়ার্কের ওপর ভিত্তি করে কাজের সুবিধার্থে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিয়ে ৮টি প্যাকেজকে ২টি প্যাকেজে রূপান্তর করা হয়। এ রূপান্তরে নিয়মের কোনো ব্যত্যয় করা হয়নি। পরবর্তিতে ডিপিপি সংশোধনকালে এটি সংশোধনীতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে সংশ্লিষ্ট দরদাতাই দর নির্ধারণ করে থাকে। তাছাড়া দরপত্র আহবান ও মূল্যায়ন প্রক্রিয়ায় পিপিআর ২০০৮ এর বিধি-বিধান অনুসরণ করা হয়েছে এবং অনুমোদনের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষ বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে।

দেশে বিদ্যমান নিয়ম অনুযায়ী এনটিটিএন প্রতিষ্ঠান আইএসপি প্রতিষ্ঠানের কাছে ব্যান্ডউইথ বিক্রয় করে থাকে এবং আইএসপি প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট সেবা প্রদান করে। ইনফো সরকার ৩য় পর্যায় প্রকল্পের ইউনিয়ন পর্যায়ে ইন্টারনেট সেবা প্রদানের ক্ষেত্রেও উক্ত নিয়ম অনুসরণ করা হবে। এতে বিভ্রান্ত হওয়োর কোনো সুযোগ নেই। এনটিটিএন প্রতিষ্ঠানগুলো নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ করবে আর গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট সেবা প্রদান করবে আইএসপি প্রতিষ্ঠানগুলো।

এনটিটিএন প্রতিষ্ঠান দুটি ২০ বছর অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল রক্ষণাবেক্ষণ, মেরামত, আপগ্রেডেশনসহ অন্যান্য সেবা প্রদান করার প্রস্তাব করেছে। পরবর্তীতে সকল বিধি-বিধান অনুসরণ করে সরকার নির্ধারিত মূল্যে এনটিটিএন প্রতিষ্ঠান দুটি আইএসপি প্রতিষ্ঠানের কাছে ব্যান্ডউইথ বিক্রয় করবে।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘আমরা দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে চাই, ইনফো-সরকার ৩য় পর্যায় প্রকল্পে পিপিআর ২০০৮ সহ সরকারের অন্যান্য বিদ্যমান আইন, নীতিমালা ও বিধি-বিধান অনুসরণ করা হয়েছে এবং হচ্ছে।’

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.