অফিস কর্মীদের শরীরে বসবে মাইক্রো চিপ!

সাইবর্গ হচ্ছে প্রকৃতি এবং যন্ত্রের সমন্বয়ে তৈরি মানুষ। এখন পর্যন্ত এ ধরনের মানুষ কেবল সায়েন্স ফিকশন সিনেমায় দেখা গেলেও, অদূর ভবিষ্যতে প্রযুক্তি মানুষকে বাস্তবেও ‘সাইবর্গ’ বানিয়ে ছাড়বে! সে আভাস ইতিমধ্যে মিলতে শুরু করেছে।

উদাহরণস্বরূপ, উইসকনসিনভিত্তিক একটি ভেন্ডিং মেশিন প্রতিষ্ঠান ‘থ্রি স্কয়ার মার্কেট’-এর কথা বলা যেতে পারে। প্রতিষ্ঠানটি এক ঘোষণায় জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে তারা প্রথম প্রতিষ্ঠান হতে যাচ্ছে যারা কর্মীদের শরীরে মাইক্রো চিপ স্থাপন করবে!

যেসব কর্মীর হাতে মাইক্রো চিপ স্থাপন করা হবে তারা এর মাধ্যমে স্ক্যানের কাজ, অফিসের বন্ধ দরজা খোলা, নির্দিষ্ট শপিংমল থেকে কেনাকাটা, কম্পিউটার লগইন করা এবং ফটোকপি মেশিন ব্যবহার করতে সক্ষম হবে।

কর্মীদের বৃদ্ধাঙ্গুল এবং তর্জনির মাঝখানে চামড়ার নিচে ছোট্ট সার্জারির মাধ্যমে এই চিপ বসানো হবে। এর আকৃতি চালের একটি দানার মতো। প্রতিটি চিপ ক্রয়ের জন্য খরচ হবে ৩০০ ডলার এবং প্রতিষ্ঠানটি সব ধরনের খরচ মেটাবে।

থ্রি স্কয়ার মার্কেট তাদের কর্মীদের উদ্দেশ্যে এক বিবৃতিতে বলেছে, এই প্রোগ্রামটি ‘সকল কর্মীদের জন্য ঐচ্ছিক’ এবং এই প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্য তারা প্রায় ৫০ জন কর্মীর প্রত্যাশা করছেন। প্রতিষ্ঠানটি জোর দিয়ে জানিয়েছে, জিপিএস ট্র্যাকিংয়ের জন্য এই চিপ ব্যবহার করা হবে না এবং চিপ ও রিডারের মধ্যে তথ্য এনস্ক্রিপ্ট প্রযুক্তির হবে।

যে ‘আরএফআইডি’ (রেডিও-ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন) চিপ শরীরে স্থাপন করা হবে তা জৈবপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ সুইডিশ প্রতিষ্ঠান বায়োএক্স ইন্টারন্যাশনালের তৈরি।

বস্তুর সঙ্গে সংযুক্ত ট্যাগ চিহ্নিত করতে এই চিপ ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক ফিল্ড ব্যবহার করে। যা মোবাইল পেমেন্টে ব্যবহৃত ফিল্ড কমিউনিকেশন, পাবলিক ট্রানজিট সিস্টেম এবং অ্যানিমেল আইডেন্টিফিকেশন প্রযুক্তির অনুরূপ।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.