অনলাইন শপিংয়ে বেশি সুবিধা ও নিরাপদ লেনদেন চায় সবাই

যদিও অনলাইন নিরাপত্তা এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের গ্রাহকদের অন্যতম সচেতনতার বিষয়; তা সত্ত্বেও এ অঞ্চলের গ্রাহকদের অনলাইন শপিং থেমে নেই। গত বছরের মাস্টারকার্ডের অনলাইন পরিসংখ্যান থেকে দেখা গেছে, এশিয়া প্যাসিফিকের প্রত্যেক ১০ জন অনলাইন গ্রাহকের মধ্যে ৮ জন ২০১৭ সালের প্রথমার্ধে কমপক্ষে ১ টি অনলাইনে কেনাকাটা করতে চান। এই ক্রম উন্নয়নশীল মার্কেটের নেতৃত্ব দিচ্ছে চীন (৯৭.৩%), ভিয়েতনাম (৯৬.২%), ভারত (৯২.৯%), মালেয়শিয়া (৯২.৮%) এবং থাইল্যান্ড (৮৭.১%)।

এই পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, এশিয়া প্যাসিফিকের ২ জন গ্রাহকের মধ্যে ১ জন অনলাইন কেনাকাটায় নিরাপদ অনুভব করেন। নিরাপদ অর্থ প্রদান সুবিধা (৮৫.৯%) এই অঞ্চলের গ্রাহকদের এই ধরনের কেনাকাটা করতে আগ্রহী করার অন্যতম উপায়। এর সাথে আরও সুবিধা হিসেবে রয়েছে মূল্য (৮৫.৫%) এবং স্বাচ্ছন্দ্য (৮৫.১%)। এই বিবেচনা সবচেয়ে বেশি প্রতিফলিত হয় ইন্দোনেশিয়া (৯৫.৩%), এর পরে রয়েছে ফিলিপাইন্স (৯২.২%), তাইওয়ান (৯১.৫%) এবং মালেয়শিয়া (৯১.২%) ।

এশিয়া প্যাসিফিক মাস্টারকার্ডের ডিজিটাল পেমেন্টস ও ল্যাবস এর ভাইস প্রেসিডেন্ট বেন গিলবে বলেছেন, ‘জরিপে প্রাপ্ত মতামত হচ্ছে, এশিয়া প্যাসিফিকের গ্রাহকরা অনলাইনে কেনাকাটার সময় আরও বেশি সুবিধা ও নিরাপত্তা প্রত্যাশা করে। যদিও আমাদের গবেষণা দেখায় যে, অধিকাংশ গ্রাহক অনলাইন কেনাকাটায় নিরাপত্তা অনুভব করে, তা সত্ত্বেও গ্রাহকদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা সম্পর্কে ভীতি দূর করার জন্য আমরা আমাদের প্রচেষ্টার কোন অভাব রাখব না।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘গ্রাহকরা যাই কিনতে ইচ্ছুক হন না কেন, তারা কি ধরনের পেমেন্ট অভিজ্ঞতা চাচ্ছেন, আমরা তা জানি। এর প্রতিফলনরূপে, আমাদের অঙ্গীকার মার্চেন্ট ও কী ইন্ডাস্ট্রি প্লেয়ারদের সাথে কাজ করে এমন একটি ই-কমার্স অভিজ্ঞতা নিয়ে আসা যা দ্রুত, সহজ এবং নিরাপদ হবে। এর অন্তর্গত হচ্ছে ডিজিটাল ওয়ালেট এবং বায়োমেট্রিক পেমেন্টস। এগুলো গ্রাহকদের কেনাকাটার অভিজ্ঞতাকে নতুনত্ব এবং নিরাপত্তা দিচ্ছে।’

জরিপে প্রাপ্ত বিস্তারিত তথ্য :

* এশিয়া প্যাসিফিকে পরিসংখ্যানের ৩ মাস আগে পর্যন্ত ১০ জন গ্রাহকের মধ্যে ৯ জন গ্রাহক অনলাইনে কেনাকাটা করেছেন। এখানে নেতৃত্ব দিচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া (৯৬.৭%), ভারত (৯৫.৮%), জাপান (৯৫.০%), ভিয়েতনাম (৯২.০%)এবং চীন (৯১.৮%) ।

* এই অঞ্চলে ই-কমার্সের বৃদ্ধির জন্য অনেক কিছু করা যেতে পারে। অনলাইন কেনাকাটার উন্নতির জন্য প্রস্তাবিত তালিকায় সবচেয়ে উপরে রয়েছে বিনামূল্যে বা সর্বনিম্ন মূল্যে ডেলিভারি দেওয়া (৬২.৯%), লেনদেনের নিরাপত্তা দেওয়া (৪৫.৯%) এবং লেনদেনের প্রক্রিয়ায় সমস্যার দূরীকরণ (৪৪.১%) ।

* এশিয়া প্যাসিফিকের এক তৃতীয়াংশ গ্রাহক (৩৭.৩%) তাদের ফ্যাশনের জিনিস পত্র অনলাইন থেকে কিনছেস। এর মধ্যে পোশাক ও আনুসাঙ্গিক খুচরা বিক্রেতাদের ওয়েবসাইট সবার উপরে রয়েছে। এর পরে রয়েছে অনলাইন সুপারমার্কেট (৩৭.৩%) এবং অ্যাপ স্টোর (৩৬.৯%) ।

* এই অঞ্চলে ইন্দোনেশিয়ার গ্রাহকরা বর্তমান সুযোগ ও সুবিধা নিয়ে সবচেয়ে বেশি সন্তুষ্ট (৯৭.১%) । এছাড়াও গ্রাহক সন্তুষ্টি ভারত (৯৪.৩%) এবং মালয়েশিয়ায় (৯২.৬%)অনেক বেশি।
– অনলাইনে কোথায় কেনাকাটা করবেন? – এ ব্যাপারে এশিয়া প্যাসিফিকের গ্রাহকরা পরিবার ও বন্ধুদের সুপারিশ করা ওয়েবসাইট ব্যবহার করে (৩৬.১%), এর পরে রয়েছে সামাজিক মাধ্যম(২৭.৪%), তারপর ঐতিহ্যগত ও মিডিয়া উৎস (১৭.৫%) । বিপরীতক্রমে থাইল্যান্ড (৫২.৪% বনাম ১৫.১% ) এবং মালয়েশিয়ায় (৩৯.০% বনাম ২৪.২%) পরিবার ও বন্ধুর সুপারিশ থেকে সামাজিক মাধ্যমের ভূমিকা বেশি প্রভাবশালী।

– বছরের শেষে ছুটির সময় ব্ল্যাক ফ্রাইডে, সাইবার মানডে, সিঙ্গেলস ডে, ক্রিসমাস ডে এবং বক্সিং ডে সেলস এর সময় অনলাইনে সবচেয়ে বেশি কেনাকাটা হয়। গ্রাহকরা ডিসেম্বর (২২.১%), নভেম্বর (১৭.৩%) এবং অক্টোবর (১৪.০%)মাসে এই অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি কেনাকাটা করে।

অতিরিক্ত সুরক্ষা ও নিরাপত্তা তথ্য :

এশিয়া প্যাসিফিকের অধিকাংশ গ্রাহক (৫৩.৯%) অনলাইনে কেনাকাটার সময় নিরাপদ অনুভব করেন। গ্রাহকরা এব্যাপারে সবচেয়ে বেশি নিরাপদবোধ করেন ভারত (৭২.১%), ইন্দোনেশিয়া (৬৬.৪%), চীন (৬৩.৫%), অস্ট্রেলিয়া (৬২.২%)এবং নিউজিল্যান্ড (৫৯.৮%) দেশগুলোতে। অপরপক্ষে ভিয়েতনাম (৩৪.০%), দক্ষিণ কোরিয়া (৩৪.৬%), জাপান (৩৬.৬%) এবং হং কং (৩৭.৪%) দেশগুলো অনালাইন কেনাকাটায় আশংকা প্রকাশ করে।

অনলাইনে নিরাপত্তায় কেনাকাটা করার জন্য সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন। যদিও মাস্টারকার্ড ইন্ডাস্ট্রির সাথে অনলাইন কেনাকাটায় বাধাবিহীন পেমেন্ট অভিজ্ঞতার জন্য কাজ করছে, তা সত্ত্বেও গ্রাহকরা এখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন নিজেদের পেমেন্টের সুরক্ষার জন্য। এর জন্য নিচের অনলাইন কেনাকাটার পরামর্শ গুলো অনুসরণ করুন:

* ইউআরএল বার এ ‘লক’ আইকন থাকলে কেনাকাটা করুন। এই আইকনের অর্থ এই সাইটটি নিরাপদ।

* অর্থনৈতিক লেনদেনের সময় আপনার গোপনীয় তথ্য সুরক্ষায় পাবলিক অসুরক্ষিত ওয়াইফাই ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

* অনলাইনে অ্যাকাউন্ট কার্যকলাপ ও স্টেটম্যান্ট পরীক্ষণের মাধ্যমে আপনার কেনাকাটার হিসেব রাখুন। কোন প্রকার সন্দেহজনক লেনদেন হলে সাথে সাথে ব্যাংককে জানান।

* আপনার পাসওয়ার্ডকে শক্তিশালী করুন। কমপক্ষে ৮ টি ক্যারেকটার রাখুন। বর্ণ ও সংখ্যার সংমিশ্রণ রাখুন।

* অনলাইন শপগুলোর জন্য ব্যবহৃত পাসওয়ার্ড এবং আপনার ইমেইল এর পাসওয়ার্ড ভিন্ন রাখুন।
– সিনিউজভয়েস ডেস্ক