অনলাইনে “স্বাধীনতা দিবস” উদযাপন করল আইডিয়া প্রকল্প

ডিজিটাল পদ্ধতির মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করল তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের অধীনে “উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (iDEA)”।

আজ বৃহস্পতিবার ২৬ মার্চ ২০২০ আইডিয়া প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট স্টার্টআপদের নিয়ে জুম এর মাধ্যমে আয়োজন করা হয় এই অনুষ্ঠান।

২৬ মার্চ আমাদের স্বাধীনতা দিবস। মার্চ আমাদের জাতীয় জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি মাস। ৭ মার্চে তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতার ডাক এসেছিল। ২৬ মার্চের সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে তা পূর্ণতা পায়। ঘোষণা ছাড়াই ২৫ মার্চ অপারেশন সার্চ লাইটের নামে বাঙালির ওপর নির্মমভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল পাকিস্তানি হানাদাররা এবং রাতের আধাঁরে শুরু করে অত্যাচার ও গণহত্যা। শুরু হয় মুক্তির জন্যে যুদ্ধ। অবশেষে লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি “বাংলাদেশ”।

তাই ২৬ মার্চ আমাদের বাঙালির জন্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ একটি দিন। এই দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে সাধারণত সারাদেশে প্রতিবারই আয়োজিত হয় বিভিন্ন অনুষ্ঠান। কিন্তু বিশ্বব্যাপি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে বাংলাদেশ সরকার স্বাধীনতা দিবসের এবারের প্রায় সব আয়োজনই বাতিল করেছেন। ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। করোনাভাইরাসে জীবনের ঝুঁকি থাকায় ঘরে থাকতে বলা হয়েছে সবাইকে। অনেক অফিসের কার্যক্রমই চলছে অনলাইনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে। আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্প এই স্বাধীনতা দিবসকে ঘিরেই অনলাইনে প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা ও স্টার্টআপদের নিয়ে এই আয়োজনটি সফলভাবে সম্পন্ন করে। জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনলাইনে এই অনুষ্ঠানের শেষ হয় প্রার্থনার মাধ্যমে।

এই আয়োজনে সভাপতিত্ব করেন আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সৈয়দ মজিবুল হক। তিনি বলেন, স্বাধীন সোনার বাংলা স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে সবাইকে নিয়ে এক সাথে কাজ করতে হবে। করোনা ভাইরাসের কারণে দেশ এখন একটি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের ব্যবসায়ীসহ সবাই এখন চিন্তিত। সরকার থেকে নেওয়া হচ্ছে নানা রকম ব্যবস্থা। আমরা আশা করি খুব শীঘ্রই এই বিপদ থেকে সবাই মুক্তি পাব। এ সময় আমাদের সকলের পাশে সকলকে থাকতে হবে। মনে সাহস রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রকল্পের উপ-পরিচালক কাজী হোসনে আরা এবং একই সাথে স্টার্টআপদের মধ্য থেকে মেডিটর হেলথ, উপার্জন, জার্নিমেকার জবস.কম, ফিশ এক্সপার্ট, মনা, লাজারুস রোবোটিক্স এর প্রতিনিধিগণসহ আরো অনেকে বক্তব্য রাখেন।

 

সিনিউজভয়েস/জিডিটি/২৬.মা./২০

 

Please Share This Post.