অনলাইনে এডিট করুন ছবি

মাল্টিমিডিয়া ফাইল ছাড়া এখন আমাদের চলেই না। আর এসব ফাইল নিয়ে নানারকম কাজ করার জন্য আমরা সাধারণত নির্ভর করি ডেস্কটপভিত্তিক নানা অ্যাপ্লিকেশন যেমন ফটোশপ, জিআইএমপি, অডাসিটি, অ্যাডোবি প্রিমিয়ার ইত্যাদির ওপর। ডেস্কটপের কথা চিন্তা করলে এটা দারুণ ব্যাপার, কিন্তু যদি অন্য বন্ধুর কম্পিউটার বা কোনো পাবলিক প্লেসে রাখা পিসিতে ছবি বা আর কিছু এডিট করতে হয়? সেখানে তো আমাদের প্রিয় এডিটর প্রোগ্রামটি ইনস্টল করা নাও থাকতে পারে। আর এসব ক্ষেত্রেই আমাদের দরকার হয় অ্যাপস। ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনের সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে সব জায়গায় সহজে ব্যবহারের সুবিধা। এই লেখায় কয়েকটি ফ্রি ওয়েব সার্ভিসের খোঁজ দিলাম যেগুলো ব্যবহার করে আমাদের ছবিগুলোকে দ্রুত ও সহজে এডিট করতে পারব।

১। পিক্সেলআর এডিটর (Pixlr Editor)

Pixlr Editor

এটির কাজ হচ্ছে ইমেজ এডিট করা। ফটোশপের মতই একই সুবিধাসম্পন্ন একটি ইমেজ এডিটর প্রোগ্রাম এটি যেটি অনলাইনে স্বচ্ছন্দে ব্যবহার করা যাবে। এত আছে ল্যাসো টুল, স্মাজ টুল, ব্লারিং টুল, ক্লোন স্ট্যাম্প ও ফটোশপের বাকি সব ফিচার। ফটোশপের বিকল্প খুঁজলে এটিই হবে আপনার জন্য সবচেয়ে ভাল অ্যাপ।

২। ফটোর (Fotor)

Fotor

ফটোর এমন একটি টুল যেটির সাহায্যে আপনার ছবি এডিট করার মৌলিক সমস্ত কাজ করতে পারবেন। ক্রপ, রোটেট, অ্যাডজাস্ট, কালার ইত্যাদি যাবতীয় ফিচার আছে এতে। এছাড়াও আপনার বিভিন্ন ছবির সাথে নানা রকমের নজরকাড়া ইফেক্ট যুক্ত করতে পারবেন। এছাড়াও বিভিন্ন টেম্পলেটকে ব্যবহার করে তৈরি করতে পারবেন দারুণ ফটো কোলাজ। ফেসবুক কাভার বা সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ কিছু তৈরির জন্য সঠিক সাইজের লেআউটও পেয়ে যাবেন এখানে।

৩। পিকমাংকি (Picmonkey)

Picmonkey

ছবি সম্পাদনা করার জন্য একটি উপযোগী অনলাইন অ্যাপ পিকমাংকি। ছবিতে নানা উপকরণ ও ইফেক্ট যুক্ত করা এবং সামাজিক যোগাযাগ সাইটে ব্যবহারের জন্য ডিজাইন তৈরি করার জন্যও স্বচ্ছন্দে ব্যবহার করতে পারেন এটিকে। একাধিক ছবিকে একত্র করে কোলাজ তৈরির সুবিধাও আছে এতে। এই প্রোগ্রামের সাহায্যে আপনার কম্পিউটার, ফেসবুক বা ফ্লিকার অ্যাকাউন্ট এবং ড্রপবক্স বা ওয়ানড্রাইভের মত ক্লাউড স্টোরেজ থেকেও ছবি আপলোড করতে পারবেন।

৪। বিফাংকি (Befunky)

Picmonkey

 

বিফাংকি একটি ইমেজ এডিটিং টুল যেখানে আছে ফিল্টার ইফেক্ট ও আর্টসি ঢিচার যেমন কার্টুনাইজ, ইমেপ্রেশানিস্ট, ওয়াটারকালার ও অন্যান্য ফিচার যুক্ত করার সুযোগ। এছাড়াও পারবেন ফ্রেম যুক্ত করা ও গ্রাফিক, ওভারলে, টেক্সট ও টেক্সটার প্রয়োগের মাধ্যমে ছবির নানা সুবিধাকে সম্প্রসারিত করার সুযোগ।

৫। পোলার (Polarr)

Befunky

পোলার হচ্ছে ব্লগার, ছাত্রছাত্রী ও ফটো প্রফেশনালদের ব্যবহারের উপযোগী একটি আদর্শ ফটো এডিটর প্রোগ্রাম। এর সাহায্যে আপনার ছবিকে ব্যাচ এক্সপোর্ট করতে, ওয়াটারমার্ক যুক্ত করতে এবং কিবোর্ড শর্টকাটসহ ব্যবহার করতে পারবেন। ক্রোম স্টোর-এ একটি পোলার ফটো এডিটরও আছে যেটি ক্রোম ব্রাউজারে বসে আপনার ছবি এডিট করতে পারবেন। এজন্য আপনার ক্রোম ব্রাউজারে ওয়েবজিএল টুডি এনাবল করা থাকতে হবে।

৬। এডিটর (Editor)

Polarr

 

আপনার যাবতীয় ছবিকে অনলাইনে এডিট করার জম্পেশ একটি টুল হচ্ছে এডিটর। এতে ক্রপ, রোটেট, কালার অ্যাডজাস্ট, এক্সপোজার ও শার্পনেসের মত নানা কাজ করার জন্য আছে সবগুলো প্রচলিত টুল। আছে বেশ কিছু ফিল্টার ইফেক্ট ছাড়াও ফ্রেম, স্টিকার ও টেক্সচার যা আপনার ছবি সংক্রান্ত নানা কাজকে সম্প্রসারিত ও সমৃদ্ধ করতে পারবে।

৭। ফটোস্টার (Fotostar)

Fotostar

ছবি এডিট করার জন্য আরেকটি দরকারি টুল। এতে আছে ক্রপ, রিসাইজ ও রোটেটসহ ফবি এডিট করার জন্য প্রয়োজনীয় সবগুলো উপকরণ। এছাড়াও এর ফটো ফিল্টার ও ইফেক্ট যুক্ত করার মাধ্যমে ছবিকে আরো স্টাইলিশ করার সুযোগ। এই টুলে আরো আছে পঞ্চাশের বেশি ইউনিক ফটো ইফেক্ট এবং ত্রিশটির বেশি ফ্রেম। আপনার ছবিতে এগুলোর প্রয়োগ করে ছবিকে আরো নজরকাড়া করে তুলতে পারবেন। ছবি এডিট করা শেষ হলে সেটিকে ডাউনলোড করতে পারেন আপনার পছন্দসই যে কোনো কোয়ালিটিতে।

৮। ফটো এডিটর এসডিকে (Photo Editor SDK)

Photo Editor SDK

এই অসাধারণ ফ্রি টুলটির সবচেয়ে বড় সম্পদ এর সহজে ব্যবহার করার উপযোগী ইনটুইটিভ ইন্টারফেস। এতে আছে অসংখ্য ফিচার, চল্লিশটির মত হ্যান্ড ক্রাফ্টেড ও নন ডেসট্রাকটিভ ফিল্টার ইফেক্ট। আছে ইমেজ ক্রপিং, কালার সেটিং, কনট্রাস্ট, স্যাচুরেশন ইত্যাদি নানা কাজ করার সুযোগ। এটির আরেকটি আকর্ষণ হচ্ছে বিশেষ দুটো ইফেক্ট: রেডিয়াল বার ও টিল্ট শিফট।

-সিনিউজভয়েস/ডেক্স